Thursday, June 13, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন দীপনের স্ত্রী

বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে দীপন হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করা হয়

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০২:৪১ পিএম

জাগৃতি প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফয়সাল আরেফিন দীপন হত্যা মামলার রায় শুনে কান্নায় ভেঙে পড়েন তার স্ত্রী নাজিয়া সুলতানা। যদিও এ বিষয়ে সাংবাদিকদের কাছে তাৎক্ষণিক কোনও প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে রাজি হননি তিনি। 

এরআগে বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) সকালে দীপন হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মুজিবুর রহমান। এসময় হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়াসহ আনসার আল ইসলামের মোট আটজনের ফাঁসির রায় দেন তিনি।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মইনুল হাসান শামীম ওরফে সামির ওরফে ইমরান, মো. আবদুর সবুর সামাদ ওরফে সুজন ওরফে রাজু ওরফে সাদ, খাইরুল ইসলাম ওরফে জামিল ওরফে জিসান, মো. আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব ওরফে সাজিদ ওরফে শাহাব, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন ওরফে শাহরিয়া, মো. শেখ আবদুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ওরফে জায়েদ ওরফে জাবেদ, সেনাবাহিনীর বরখাস্তকৃত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হক জিয়া (নিষিদ্ধ সংগঠনটিতে সাগর ওরফে ইশতিখাক ওরফে বড়ভাই হিসেবে পরিচিত) এবং আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব ওরফে আবির ওরফে আদনান ওরফে আবদুল্লাহ। বরখাস্ত হওয়া মেজর জিয়াউল ও আকরাম এখনও পলাতক।


আরও পড়ুন - দীপন হত্যা মামলা: ৮ জনের ফাঁসির আদেশ


প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর  দীপন হত্যা মামলায় নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের এ আট জঙ্গির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে আদালত।

২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দায়ের হওয়া মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেওয়ার আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছিল।

এর আগে, ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে নিজের প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান জাগৃতির কার্যালয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক আবুল কাসেম ফজলুল হকের ছেলে দীপনকে গলা কেটে হত্যা করা হয়।

About

Popular Links