Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘ছাগল চোর’ নেতাকে বহিষ্কার করল ছাত্রলীগ

প্রাইভেট কারে করে ছাগল চুরির সময় ছাত্রলীগ নেতা তুহিন দর্জি ও তার চার সহযোগীকে আটক করেছিল পুলিশ

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ০৪:০৮ পিএম

প্রাইভেট কারে করে ছাগল চুরির সময় মাদারীপুর জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তুহিন দর্জিকে (৩০) বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাহিদ হোসেইন অনিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তুহিন দর্জি জেলা ইমারত শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ও ঘটমাঝি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জাকির দর্জির ছেলে ও জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি। 

এ বিষয়ে ছাত্রলীগ নেতা জাহিদ হোসেইন অনিক বলেন, ছাগল চুরির বিষয়টি সারা দেশে সমালোচিত হয়েছে। ছাত্রলীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তুহিন গ্রেপ্তার হওয়ার দিনই আমরা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কাছে তার বহিষ্কার চেয়ে সুপারিশ পাঠিয়েছি। চিঠি পাঠানোর ৬ দিন পর মঙ্গলবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত ছাত্রলীগের একটি প্যাডে তুহিনকে বহিষ্কারের ঘোষণা দেওয়া হয়।


আরও পড়ুন - প্রাইভেট কারে করে ছাগল চুরির সময় ছাত্রলীগ নেতা আটক


পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে (৪ ফেব্রুয়ারি) তুহিন দর্জি ও তার সহযোগীরা সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের পুরাতন ফেরিঘাট এলাকার রাস্তার পাশ থেকে লোকমান মালত নামের এক ব্যক্তির একটি ছাগল চুরি করে প্রাইভেটকারে করে নিয়ে যাচ্ছিলেন।

এ সময় স্থানীয় লোকজন চোর চোর বলে চিৎকার করছিল। এ সময় শিবচর থেকে একটি পুলিশের গাড়ি রাস্তা দিয়ে মাদারীপুরে যাচ্ছিল। জনতার চিৎকারে পুলিশ প্রাইভেট কারটিকে আটকে ফেলে এবং চুরি করা ছাগলসহ তুহিন দর্জিকে ও তার চার সহযোগী জুবায়ের হাওলাদার, রানা ব্যাপারী, রবিউল ইসলাম ও মাহবুব তালুকদারকে আটক করে। এ ঘটনায় মামলা হলে ছাত্রলীগ নেতা তুহিন ও তার চার সহযোগীকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায় পুলিশ।

এদিকে, ছাগল চুরির মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মাদারীপুর সদর মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) দিপংকর রোয়াজা বলেন, বাদীর আপত্তি না থাকায় ছাগল চুরির মামলায় আসামিরা জামিন পেয়েছে। কিন্তু মাদক দ্রব্য আইনে তুহিন দর্জির নামে আরও ৭টি মামলা আছে। সেই মামলায় এখনও তারা কারাগারে রয়েছে।

About

Popular Links