Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টিকা নিলেন বিদেশি কূটনীতিকরাও

বুধবার ভ্যাটিক্যান সিটির রাষ্ট্রদূতের পাশাপাশি ভারত, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জার্মানি, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইতালিসহ বিভিন্ন দেশের মিশন প্রধানসহ প্রায় ৩০ কূটনীতিক টিকা নেন

আপডেট : ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১০:৪০ পিএম

ঢাকায় অবস্থানরত বিদেশি কূটনীতিকদের জন্য করোনাভাইরাসের টিকাদান কর্মসূচি শুরু করেছে সরকার। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকালে মহাখালীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট হাসপাতালে এই টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

প্রথম দিনে সেখানে ঢাকায় ডিপ্লোমেটিক কোরের ডিন ভ্যাটিক্যান সিটির রাষ্ট্রদূতের পাশাপাশি ভারত, ইউরোপীয় ইউনিয়ন, জার্মানি, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইতালি, অস্ট্রেলিয়াসহ বিভিন্ন দেশের মিশন প্রধানসহ প্রায় ৩০ কূটনীতিক টিকা নেন।

টিকা নিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনও।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার বলেন, “বাংলাদেশে যতটি দেশের কূটনীতিকরা আছেন, সকলের জন্য আমরা আলাদাভাবে এখানে আয়োজন করেছি। আজকে ৩০ জনেরও অধিক কূটনীতিক আছেন। পর্যায়ক্রমে ১২শ’র অধিক কূটনীতিক বাংলাদেশে যারা আছেন, তারা সকলেই ভ্যাকসিন নেবেন।”

কূটনীতিকদের টিকা দেওয়ার জন্য শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট সপ্তাহে দুই থেকে তিনদিন নির্দিষ্ট করে দেওয়া হবে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী। তিনি জানান, বিদেশি মিশনের বাইরে আন্তর্জাতিক সংস্থার দপ্তরে কর্মরত বিদেশিদের তালিকাও চেয়েছে সরকার। তারাও এ হাসপাতাল থেকে টিকা নেবেন।

টিকাদানে বাংলাদেশের সাফল্যের কথা তুলে ধরে শাহরিয়ার আলম বলেন, “পৃথিবীর অনেক দেশ এখনও কিন্তু এই লেভেলে ভ্যাকসিন কার্যক্রম শুরু করতে পারেনি, আমরা গতকাল পর্যন্ত লক্ষাধিক মানুষকে ভ্যাকসিনেট করেছি।”

ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী টিকা নিয়ে বলেন, “বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে সহযোগিতা কোন পর্যায়ে রয়েছে, এটা তার প্রতিফলন। এক্ষেত্রে সহজ বাস্তবতা হচ্ছে, দুই দেশকে একইসঙ্গে টিকাদান কর্মসূচি চালাতে হবে। ভারত, বাংলাদেশ ও আমাদের প্রতিবেশীরা একইসঙ্গে টিকা নিতে হবে।”

তিনি বলেন, “আমাদের বন্ধুত্ব কতটা কাছের তা প্রদর্শনের লক্ষ্যেই আমাদের দিক থেকে বাংলাদেশকে টিকাদানের ক্ষেত্রে সহায়তা দেওয়া হচ্ছে।”

টিকা নিয়ে ঢাকায় কূটনৈতিক কোরের ডিন আর্চবিশপ জর্জ কোশারি বলেন, “এখান কূটনৈতিকদের পক্ষ থেকে টিকাদান শুরুর জন্য আমি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানাই।”

ঢাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি টিরিংক বলেন,“আমি মনে করি, এই আয়োজনের উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষকে দেখানো যে, বিদেশি কূটনীতিকরাও আস্থা সহকারে টিকা নিচ্ছে। আমাকে টিকা নিয়ে ইউরোপ যেতে হচ্ছে না, আমি এখানেই তা করতে পারছি এবং আজকেই সেটা করেছি।”

About

Popular Links