Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ঘর পেলেন টাঙ্গাইলের সেই বাসন্তী

গত বছরের সেপ্টেম্বরে মধুপুর বনভূমি জবর দখল উচ্ছেদের অংশ হিসেবে গারো নারী বাসন্তী রেমার ৪০ শতাংশ জমির কলাবাগান কেটে ফেলে বন বিভাগ 

আপডেট : ৩১ মার্চ ২০২১, ০৬:০৩ পিএম

অবশেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার পাকা সরকারি ঘর পেলেন টাঙ্গাইলের মধুপুর গড়ের আলোচিত গারো নারী বাসন্তী রেমা (৪৫)।  

গত বছরের সেপ্টেম্বরে মধুপুর বনভূমি জবর দখল উচ্ছেদের অংশ হিসেবে শোলাকুড়ি ইউনিয়নের পেগামারী গ্রামের গারো নারী বাসন্তী রেমার ৪০ শতাংশ জমির কলাবাগান কেটে ফেলে বন বিভাগ। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ গারো সম্প্রদায়ের লোকজন আন্দোলনসহ নানা কর্মসূচিতে সবকিছু উত্তাল করে তোলে। 

গারোদের সেই আন্দোলনকে থামাতে উপজেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টরা ঘটনাস্থলে গিয়ে চেষ্টা চালায়। এই সময় প্রশাসনের মধ্যস্থতায় ও ক্ষতিপূরণে সহায়তার আশ্বাসে আন্দোলনকারীরা আন্দোলন থেকে সরে যায়। যথাযথ প্রক্রিয়া শেষে সে প্রতিশ্রুত প্রধানমন্ত্রীর উপহারের পাকা ঘর বাসন্তী রেমার নামে বরাদ্দ হয়। 

মধুপুরের পেগামারী গ্রামে সেই ঘরের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন মধুপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফা জহুরা। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) এম এ করিম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা (পিআইও) রাজিব আল রানা, ইউপি চেয়ারম্যান আক্তার হোসেন ও মধুপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান।

বাসন্তী রেমা বলেন, “এতোদিন মাটির ঘরে ছিলাম। পাকা ঘরে বসবাস করার সুযোগ স্বপ্নেও ভাবিনি। প্রধানমন্ত্রীর উপহার এ ঘর প্রাপ্তির সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ইউএনও ও সংশ্লিষ্টদের প্রতি আমি বিশেষ কৃতজ্ঞ।” 

ইউএনও আরিফা জহুরা জানান, “গত বছর সেপ্টেম্বর মাসে বাসন্তী রেমার কলাবাগান কেটে ফেলায় তার বড় ধরনের ক্ষতি হয়। সেই ক্ষতি পুষিয়ে দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সাথে যোগাযোগ করে এ পাকা ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়।”

About

Popular Links