Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কোয়ারেন্টিন থেকে পালিয়েছেন ৪ করোনাভাইরাসের রোগী

রবিবার (১৮ এপ্রিল) বিকেলই ভারত থেকে ফিরেছিলেন তারা

আপডেট : ১৯ এপ্রিল ২০২১, ০৬:০৮ পিএম

পঞ্চগড় জেলার তেঁতুলিয়া উপজেলার কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের অস্থায়ী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইন সেন্টার থেকে রবিবার (১৮ এপ্রিল) রাতে পালিয়ে গেছেন চারজন করোনাভাইরাস পজিটিভ রোগী।

পালিয়ে যাওয়া রোগীদের বাড়ি পঞ্চগড়,  ঠাকুরগাঁওসহ বিভিন্ন জেলায়। ভারত থেকে আসা ১২ জন করোনাভাইরাস রোগী অবস্থান করছিলেন কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে।

জানা গেছে, রবিবার বিকালে বাংলাবান্ধা স্থলবন্দরের ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে ভারত থেকে ১২ জন বাংলাদেশি নারী-পুরুষ দেশে ফেরেন। কাস্টমস-ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদের তেঁতুলিয়া উপজেলার কাজী শাহাবুদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের অস্থায়ী প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন সেন্টারে রাখা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের নিজ খরচে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে অবস্থান বাধ্যতামূলক করা হয়। সেখান থেকে রাতেই চারজন পালিয়ে গেছেন। বর্তমানে আটজন সেখানে অবস্থান করছেন।

পঞ্চগড়ের সিভিল সার্জন ডা. ফজলুর রহমান জানান, মহামারি করোনাভাইরাসের ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণ ঠেকাতে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার বাংলাবান্ধা স্থলবন্দর ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট দিয়ে আগমনকারী দেশি-বিদেশি নাগরিকদের নিজ খরচে এখানে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখার সিদ্ধান্ত নেয় জেলা করোনাভাইরাস প্রতিরোধ কমিটি। এ জন্য একটি মেডিকেল টিম সার্বক্ষণিক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ১০টি কক্ষে ৫০ শয্যার ব্যবস্থা করা হয়েছে। প্রয়োজনে ১৫০ শয্যায় উন্নীত করা হবে।

তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ চন্দ্র সাহা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পালিয়ে যাওয়া ওই চারজনের ঠিকানায় খোঁজ করে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

About

Popular Links