Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

‘বাংলাদেশি ইসরায়েলে গেলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, 'ইসরায়েলের প্রতি আমাদের অবস্থানের কোনো ধরনের পরিবর্তন হয়নি'

আপডেট : ২৬ মে ২০২১, ০৫:৩৯ পিএম

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশ ইসরায়েলকে স্বীকৃতি দেয়নি। তাই, কোনো বাংলাদেশি ইসরায়েলে প্রবেশ করতে পারবে না।
তিনি আরও বলেন, “যদি কেউ (কোনো বাংলাদেশি নাগরিক) সরকারের অনুমোতি ছাড়া ইসরাইলে যায়, তবে, তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

বুধবার (২৬ মে) রাজধানীতে রাষ্ট্রীয় অতিথিশালা পদ্মায় বাংলাদেশে নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদানের কাছে ফিলিস্তিনের জনগণের জন্য ফার্মাসিউটিক্যাল দ্রব্য ও সরঞ্জামাদি হস্তান্তরকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, “সরকার কাউকে ইসরায়েল ভ্রমণের অনুমোদন দেয়নি। আমরা আইনগতভাবে এ ব্যাপারে খুবই দৃঢ় অবস্থানে রয়েছি। আর সবাই তা জানে।”

মোমেন বলেন, “এক্ষেত্রে আইন প্রয়োগ করা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব। আমাদের ইমিগ্রেশন বিভাগ তাৎক্ষণিক তাদেরকে আটকে দেবে। ইমিগ্রেশন এই সব দিকগুলো নিয়ন্ত্রণ করবে।”

চলতি বছরের মে মাসের আগ পর্যন্ত ইস্যুকৃত বাংলাদেশি পাসপোর্টে “ইসরায়েল ছাড়া বিশ্বের সকল দেশে এই পাসপোর্টে ভ্রমণ বৈধ” কথাটি লেখা ছিল। কিন্তু নতুন ই-পাসপোর্টে “বিশ্বের সকল দেশে এই পাসপোর্টে ভ্রমণ বৈধ” লেখা রয়েছে।

ড. মোমেন বাংলাদেশি পাসপোর্টে ইসরায়েল প্রসঙ্গ বাদ দেয়ার কারণ ব্যাখ্যা করে বলেন, “আমরা কয়েক মাস আগে আমাদের পাসপোর্ট বৈশ্বিক মান অনুযায়ী করেছি। কিন্তু আমরা আমাদের অবস্থান থেকে বিচ্যূত হইনি। যতদিন পর্যন্ত সত্যিকারের স্বাধীন ফিলিস্তিন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা না হবে, ততদিন পর্যন্ত আমরা ইসরায়েলকে  স্বীকৃতি দিব না।”

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, “ইসরায়েলের প্রতি আমাদের অবস্থানের কোনো ধরনের পরিবর্তন হয়নি। বঙ্গবন্ধুর সময়ে বাংলাদেশের পররাষ্ট্রনীতি যেমন ছিল, এখন তেমনই আছে।”
 

About

Popular Links