Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রেম নিয়ে দুই কিশোর গ্যাংয়ের মারামারি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজকে ঘিরে অন্তত চারটি কিশোর গ্যাং সক্রিয়। মাদক, প্রেম, আধিপত্য ইত্যাদি ছাড়াও অনেক ছোটখাটো বিষয় নিয়েও তারা জড়িয়ে পড়ছে বিবাদে

আপডেট : ০৭ জুন ২০২১, ০৪:৪৯ পিএম

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) প্রেম করা নিয়ে দুই কিশোর গ্যাংয়ের মধ্যে মারামারি ও মহড়া দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। 

রবিবার (৬ জুন) বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অ্যান্ড কলেজ এলাকায় ক্যাম্পাসের পার্শ্ববর্তী ইসলামনগরের “রিমু গ্যাং” ও রাঙামাটি এলাকার “রাইডারবিডি ০০৭” গ্যাংয়ের মধ্যে মারামারির ঘটনায় দুই গ্যাংয়ের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় স্কুল অ্যান্ড কলেজের এক ছাত্রীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক ছিল “রাইডারবিডি ০০৭” গ্যাংয়ের সদস্য রুদ্রের। কিছুদিন আগে তাদের সম্পর্ক ছিন্ন হয়। পরে ওই ছাত্রী ইসলামনগরের রিমু গ্যাংয়ের সদস্য রাতুলের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। এতে রুদ্র ক্ষুব্ধ হয়ে কয়েকবার রাতুলকে হুমকি দেয়। রবিবার এ ঘটনার জের ধরে রাতুল ও রুদ্রের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে রাতুল ও তার গ্যাংয়ের সদস্যরা রুদ্রকে মারধর করে। খবর পেয়ে দুই গ্যাংয়ের সদস্যরা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। এ সময় রাইডারবিডি ০০৭ গ্যাংয়ের সদস্যদের চাপাতিসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দিতে দেখা যায়। তবে বড় ধরনের সংঘর্ষের আগেই বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা শাখার সদস্যরা তাদের সরিয়ে দেয়। এ ঘটনার পর রবিবার বিকাল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত দুই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যদের চৌরঙ্গীসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন এলাকায় দল বেধেঁ ঘোরাফেরা করতে দেখা গেছে।

এ বিষয়ে রিমু বলেন, “সংঘর্ষের কোনো ঘটনা ঘটেনি। একটা মেয়েকে নিয়ে রুদ্র আর রাতুলের মধ্যে ঝামেলা চলছিল। সেই ঘটনার জেরে আজ (রবিবার) তাদের দু’জনের মধ্যে মারামারি হয়। পরে আমরা গিয়ে তাদের শান্ত করে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করি।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা জেফরুল হাসান চৌধুরী বলেন, “খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমরা ওই এলাকায় গিয়ে দেখি অনেক কিশোর জড়ো হয়েছে। পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার আগেই আমরা গিয়ে তাদের সরিয়ে দিয়েছি।”

জাবি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ আবদুল জলিল ভূঞা বলেন, “কিশোরদের ঝামেলার বিষয়টি শুনেছিলাম। পরে অন্য শিক্ষকদের খোঁজ নিতে পাঠানো হয়েছিল। তবে শিক্ষকরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে দেখতে পায়নি।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, “কিশোরদের মারামারির কোনো ঘটনা সম্পর্কে আমরা এখনো জানতে পারিনি। তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটালে অবশ্যই প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

প্রসঙ্গত, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অবস্থিত জাবি স্কুল এন্ড কলেজকে ঘিরে অন্তত চারটি কিশোর গ্যাং সক্রিয়। মাদক, প্রেম, আধিপত্য ইত্যাদি ছাড়াও অনেক

About

Popular Links