Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সকালে ফাঁসির আসামির মৃত্যু, বিকেলে খালাসের চিঠি

ছয় মাস আগে উচ্চ আদালত থেকে খালাস পান ওবায়দুর। কিন্তু কারামুক্তির আইনগত কাজ শেষ হওয়ার আগেই ১৩ বছর বন্দি থেকে মারা যান তিনি।

আপডেট : ০৮ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:৪৪ পিএম

সাতক্ষীরায় জোড়া পুলিশ খুন মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ওবায়দুর রহমান আবেদ আলীর খালাসের আদেশ উচ্চ আদালত থেকে বিচারিক আদালতে পৌঁছানোর আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

গতকাল রোববার সকালে ওবায়দুর খুলনা কারাগারে বন্দি অবস্থায় মারা যান। আর বিকালে সাতক্ষীরা আদালতে পৌঁছায় খালাসের আদেশ।

ছয় মাস আগে উচ্চ আদালত থেকে খালাস পান ওবায়দুর। কিন্তু কারামুক্তির আইনগত কাজ শেষ হওয়ার আগেই ১৩ বছর বন্দি থেকে মারা যান তিনি।

মৃত ওবায়দুর সাতক্ষীরার কুখরালি গ্রামের রজব আলির ছেলে।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৩ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি রাতে শহরের ছফুরননেছা মহিলা কলেজের সামনে দুই পুলিশ কনস্টেবল অজ্ঞাত সন্ত্রাসীদের ছুরিকাঘাতে নিহত হন।

এ ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ২০০৬ সালে আসামি রায়হানুল ইসলাম, জাকির হোসেন ও ওবায়দুর রহমানকে মৃত্যুদণ্ড দেয় সাতক্ষীরা জেলা জজ আদালত। ২০১১ সালে রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করে ওবায়দুর খালাস পান। পরে রাষ্ট্রপক্ষ আপিল করলে গত ১১ এপ্রিলের রায়েও খালাস বহাল থাকে।

ওবায়দুরের ভাই হাবিবুর রহমান জানান, উচ্চ আদালত থেকে খালাসের আদেশ না পৌঁছানোয় তার ভাইকে ছয় মাসেরও বেশি সময় আটক থাকতে হয়। এরই মধ্যে তিনি ক্যান্সারে আক্রান্ত হন।

ছেলে আশিকুর রহমান শাওন বলেন, দীর্ঘদিন কনডেম সেলে থাকার কারণেই তার বাবা অসুস্থ হয়ে পড়েন।

About

Popular Links