Sunday, June 16, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মায়ের জন্য ২৩০ কিলোমিটার সাইকেল চালিয়ে বাড়ি পৌঁছালো ছেলে

প্রায় ২০ থেকে ২৫ বছর আগে একইভাবে সোহেলের বাবা মানিক মিয়াও নিখোঁজ হয়েছিলেন

আপডেট : ০২ আগস্ট ২০২১, ০৮:২১ পিএম

করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি রোধে দেশব্যাপী সরকার ঘোষিত কঠোর লকডাউন চলছে। ফলে বন্ধ রয়েছে সব ধরনের গণপরিবহন। এর মধ্যে মোবাইল ফোনে খবর আসে মা নিখোঁজ হয়েছেন। আর তাই কোনো উপায় না পেয়ে মায়ের জন্য লকডাউনের মধ্যেই ঢাকা থেকে সাইকেলে ২৩০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে মৌলভীবাজারের গ্রামের বাড়িতে গিয়েছেন সোহেল আহমেদ (২৮)।

১৪ ঘণ্টা সাইকেল চালিয়ে রবিবার (১ আগস্ট) জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার লগুরপাড় গ্রামের বাড়িতে পৌঁছান তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নের লগুরপাড় গ্রামের বাসিন্দা হাজেরা বিবি ওরফে কুঠিল (৪৮)। গত বুধবার (২৮ জুলাই) রাতে বড় ভাই আসিদ আলির বাড়ি থেকে রাতের খাবার খেয়ে তিনি প্রতিবেশী রকিব মিয়ার বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন। বৃহস্পতিবার ভোরে ঘুম থেকে উঠে রকিব মিয়ার স্ত্রীকে চা বানাতে বলে ঘর থেকে বেরিয়ে যান হাজেরা। এরপর থেকে তার আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

সোহেলের খালাতো ভাই সেলিম মিয়া জানান, ২০-২৫ বছর আগেও একইভাবে সোহেলের বাবা মানিক মিয়াও নিখোঁজ হয়েছিলেন। আজও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা আসিদ আলি বলেন, “বোনের নাতনির কাছ থেকে নিখোঁজের কথা শুনে তার বাড়িতে গিয়ে দেখি দরজা তালাবদ্ধ, বাইরের বাতি জ্বলছে। এরপর প্রতিবেশীদের বাড়িতে খোঁজ নিতে পেলে প্রতিবেশী রকিব মিয়ার স্ত্রী জানান, রাতে হাজেরা বিবি তাদের বাড়িতে ঘুমিয়েছিলেন, ভোরে চা বানিয়ে রাখতে বলে ঘর থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেননি।”

পরে সম্ভাব্য সব আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে খোঁজ নিয়েও তার কোনো খোঁজ না পেয়ে শুক্রবার বিকেলে কমলগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন আসিদ আলি।

সোমবার সন্ধ্যায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত হাজেরা বিবির খোঁজ মেলেনি।

কমলগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত সোহেল রানা জানান, এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি করা হয়েছে। পাঁচ দিন পেরিয়ে গেলেও ওই নারীর কোনো খোঁজ মেলেনি। মোবাইল ফোনও বন্ধ। তাকে খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

About

Popular Links