Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিনা চিকিৎসায় শেকলবন্দি শাহিন

ছোটবেলায় রেললাইনে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পায় শাহিন। পরে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল তাকে

আপডেট : ০৪ আগস্ট ২০২১, ০৫:১৪ পিএম

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় শাহিন ফকির (২৬) নামে এক তরুণ ১০ বছর ধরে শেকলবন্দি হয়ে জীবনযাপন করছেন। মাথায় আঘাত পেয়ে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন তিনি। বর্তমানে বিনা চিকিৎসায় অমানবিক জীবন কাটছে তার। শারীরিক অবস্থাও অবনতির দিকে।

উপজেলার রূপাপাত ইউনিয়নের কলিমাঝি গ্রামের আমিন ফকিরের দুই ছেলে ও পাঁচ মেয়ের মধ্যে শাহিন ফকির সবার বড়। তিনি মাদ্রাসার হেফজ বিভাগে পড়াশোনা করতেন।

স্বজনরা জানান, ছোটবেলায় রেললাইনে পড়ে গিয়ে মাথায় আঘাত পেয়েছিলেন শাহিন। পরে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল তাকে। এরপর পাবনার একটি মাদ্রাসায় পড়তে পাঠানো হয়। সেখানে হঠাৎ তার শারীরিক অসুস্থতা দেখা দিল তিনি বাড়ি ফিরে আসেন।

শাহিনের মা সাজেদা বেগম বলেন, “বড় আশা নিয়ে ছেলেকে মাদ্রাসায় ভর্তি করেছিলাম। আশা ছিল সে বড় একজন আলেম হবে। কিন্তু বিধাতার নির্মম পরিহাস তাকে আজ আমরা ঘরের বারান্দায় শিকলে বেঁধে রেখেছি। তাকে ছেড়ে দিলে সে বাড়ির সবাইকে মারধর করে। বাড়িঘর ভাঙচুর করে। আগে শরীরে জামা-কাপড় রাখলেও এখন রাখতে চায় না।”

তিনি আরও বলেন, “তাকে সুস্থ করার জন্য লোকে যা যা বলেছে আমরা তাই করেছি। তার চিকিৎসা করতে গিয়ে আমরা এখন নিঃস্ব। থাকার জায়গায়টুকু ছাড়া আর কিছুই নেই। শাহিনের নামে একটা প্রতিবন্ধী ভাতার কার্ড আছে। এছাড়া আমরা আর কোনো সরকারি সুযোগ-সুবিধা পাই না। ছোট ছেলে তুহিন ফকির (১৮) ইলেকট্রনিক্সের কাজ করে যা পায় তা দিয়েই আমরা কোনোমতে খেয়ে না খেয়ে বেঁচে আছি।”

শাহিনের বাবা আমিন ফকির বলেন, “আমি একজন দিনমজুর। এখন বয়স হয়েছে। কাজকর্ম করতে পারি না। আমার ৩০ শতাংশ জায়গা বিক্রি করে ছেলের চিকিৎসা করেছি। এখন আর কিছু নেই। টাকার অভাবে বিনা চিকিৎসায় শেকল দিয়ে বেঁধে রেখেছি।”

স্থানীয় বাসিন্দা ও সমাজকর্মী সৈয়দ তারেক মো. আব্দুল্লাহ বলেন, “মানসিক ভারসাম্যহীন শাহিনের পরিবারের বর্তমান অবস্থাও খুবই খারাপ। আর অমানবিক জীবনযাপন করছে শাহিন। পরিবারটির পাশে স্থানীয় প্রশাসন ও বিত্তবানদের এগিয়ে আসা উচিত ।”

এ ব্যাপারে সরেজমিনে খোঁজ-খবর নিয়ে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা প্রকাশ কুমার বিশ্বাস।

বোয়ালমারী উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ঝোটন চন্দ্র বলেন, “শাহিনের ব্যাপারে খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

About

Popular Links