Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বজ্রপাতে নিহতদের লাশ চুরির ভয়ে কবর ঢালাই

যদিও বজ্রপাতে নিহত মানুষের হাড় কাজে লাগে, এমন ধারণার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই বলে জানান স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা

আপডেট : ০৮ আগস্ট ২০২১, ১১:২৭ এএম

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায় গত বুধবার বজ্রপাতে ১৭ জন নিহত হন। নিহতদের বাড়ির সীমানার ভেতরই কবর দেওয়া হয়েছে। মরদেহ চুরি ঠেকাতে কবরগুলোর ওপর সিমেন্টের ঢালাই দিয়ে চারপাশে প্রাচীরও নির্মাণ করা হয়েছে।

জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

মৃত সজীবের কবরের ওপর ঢালাই দেওয়ার বিষয়ে তার বাবা সদর উপজেলার সূর্যনারায়ণপুর জনতারহাট গ্রামের দুরুল হোদার (৪২) বরাতে ওই প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে,  “বজ্রপাতে মারা যাওয়া লাশ চুরির বিষয়ে এলাকায় প্রচার আছে। এ ছাড়া আমি এ ধরনের চুরির ঘটনার সাক্ষী। আমি নিজে একজন রাজমিস্ত্রি।”

নিহত তোবজুলের ছেলে মাইদুল ইসলাম জানান, বাড়ির সামনে মা–বাবা, ভাই-ভাবি, বোন ও ভাগনের লাশ এক সারিতে দাফন করা হয়েছে। তাদের ছয়টি কবরের ওপরে ঢালাই দেওয়া হয়েছে গত বৃহস্পতিবারই। কবরগুলোর চারপাশে প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে। ভাতিজা মো. বাবুকেও চরবাগডাঙ্গা এলাকায় বাড়ির সীমানার মধ্যে দাফন করা হয়েছে। তার কবরেও এমন ব্যবস্থা করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের জৈটকাপাড়া গ্রামের বেলিয়ারা বেগম ও টিপু সুলতানের কবর দেওয়া হয়েছে বাড়ির আঙ্গিনার মধ্যেই। সেগুলোও ঢালাই দেওয়া হয়েছে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেলিয়ারার চাচাতো ভাই মাইদুল ইসলাম ও টিপু সুলতানের চাচাতো ভাই জমির উদ্দিন।

বজ্রপাতে নিহতদের মরদেহ অনেক দামে বিক্রি হয়, এমন বিশ্বাস থেকে কবরগুলোর ঢালাই দিয়ে প্রাচীর নির্মাণ করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

যদিও চাঁপাইনবাবগঞ্জের সিভিল সার্জন জাহিদ নজরুল চৌধুরী প্রতিবেদনটিতে বলেন, “বজ্রপাতে নিহত মানুষের হাড় কাজে লাগে, এমন ধারণার কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই।”

প্রসঙ্গত, চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ইউনিয়নের পদ্মা নদীর তেলিখাড়ি ঘাটে গত বুধবার দুপুরে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে। এতে ১৭ জনের প্রাণহানি হয়েছে। আহত হন আরও ১২ জন।

 

About

Popular Links