Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সিলেটের সরকারি পুনর্বাসন কেন্দ্রে ৪ তরুণীর ‘আত্মহত্যা’ চেষ্টা

গত ২২ জুলাই সিলেটের সমাজসেবা অধিদপ্তরের ছোটমণি নিবাসে দুই মাসের এক শিশু হত্যার ঘটনায় এখনও স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে

আপডেট : ২০ আগস্ট ২০২১, ১০:৩০ এএম

সিলেটে সমাজসেবা অধিদপ্তর পরিচালিত সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে চার তরুণীর ওপর নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। আর এ ঘটনার পর ভুক্তভোগীরা নিজেদের হাত কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে বলে জানা যায়। পরে তাদেরকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১৯ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে সিলেটের খাদিমনগরে সমাজসেবা অধিদপ্তরের সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে। এসময় তারা আত্মহত্যার চেষ্টা করলে রক্তাক্ত অবস্থায় কর্তৃপক্ষ তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তাদের অভিযোগ, ‘‘প্রশিক্ষক ও স্টোরের দায়িত্বে থাকা দেলওয়ার হোসেন এবং অফিস সহকারী আনোয়ারা বেগম তাদের ওপর নির্যাতন করেন। ঘটনার দিন সকাল ১১টার দিকেও দেলওয়ার তাদের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন। দীর্ঘদিনের নির্যাতন-অপমান সহ্য করতে না পেরে তারা আত্মহত্যার চেষ্টা চালান।’’

বর্তমানে ওই চার তরুণী ওসমানী হাসপাতালের ক্যাজুয়ালটি বিভাগে চিকিৎসাধীন। 

তাদের মধ্যে কলি বেগম নামে একজনের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে তাদেরকে শারীরিক এবং মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছেন দেলওয়ার এবং আনোয়ারা। মাঝে মাঝে আনোয়ারা তাদেরকে জুতাপেটাও করেন। ঘটনার দিন সকালে খাবার নিয়ে প্রশিক্ষক দেলওয়ার তাদেরকে খারাপ কথাবার্তা বললে তারা আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

মোট ৩৮ তরুণী ও দুই শিশু মিলে সামাজিক প্রতিবন্ধী মেয়েদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের মোট বাসিন্দা ৪০ জন। 

ওই চার তরুণীর ভাষ্য, কিছুদিন আগে তাদের সঙ্গে এক তরুণী বিষপান করে আত্মহত্যা করেন। তার স্মরণে শিরনী অনুষ্ঠান হবে শুক্রবার। মূলত এ শিরনী নিয়েই বকাঝকা করেন দেলওয়ার।

তবে অভিযুক্ত প্রশিক্ষক ও স্টোরের অতিরিক্ত দায়িত্বে থাকা দেলওয়ার হোসেন দাবি করেন, ‘‘ওই প্রশিক্ষণার্থীরা সামান্য কিছু হলেই হাত কেটে ফেলে। এর আগেও একাধিকবার তারা এমন ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি মাত্র পাঁচ দিন ধরে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে স্টোরের অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছি। এর আগে আনোয়ারা বেগম অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করতেন।’’

দেলওয়ার আরও বলেন, ‘‘প্রশিক্ষণার্থীদের বুঝিয়ে বলা হয়েছিল শিরনির জন্য অতিরিক্ত কোনো বরাদ্দ নেই স্টোরে। যা বরাদ্দ সেগুলো দিয়েই রান্না করা হবে। কিন্তু তারা সেগুলো শুনতে চায়নি। তাই তারা কোনো কারণ ছাড়াই এমন ঘটনা ঘটিয়েছে।’’

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অফিস সহকারী আনোয়ারা বেগম এবং সহকারী ব্যস্থাপক লুৎফর রহমানের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে কয়েকবার ফোন করা হলেও তারা কল রিসিভ করেননি।

উল্লেখ্য, গত ২২ জুলাই সিলেটের সমাজসেবা অধিদপ্তরের ছোটমণি নিবাসে দুই মাসের এক শিশু হত্যার ঘটনায় এখনও স্থানীয়দের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এর মাঝেই এই চার তরুণীর আত্নহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটল।

About

Popular Links