Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নদীগর্ভে বিলীনের শঙ্কায় দুই শতাব্দী প্রাচীন গ্রামটি

গ্রামের চার ভাগের এক ভাগ এলাকা নদীতে বিলীন হয়ে গেছে

আপডেট : ২০ আগস্ট ২০২১, ১২:০৫ পিএম

দশানী নদীর ভাঙনে বিলীনের হুমকিতে পড়েছে জামালপুরের বকশীগঞ্জ উপজেলার প্রায় দুই শতাব্দী প্রাচীন গ্রাম কুশল নগর দক্ষিণপাড়া। নদীভাঙনে শত শত পরিবার হয়ে পড়েছে ভূমিহীন। বিলীন হচ্ছে আবাদী জমি। উপজেলার নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের এই গ্রামে প্রায় ১০ হাজার লোকের বসবাস। রয়েছে একাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, উপাসনালয় এবং সেবামূলক প্রতিষ্ঠান ।

স্থানীয়রা জানান, তীব্র ভাঙনে গ্রামের বেশিরভাগ নদীগর্ভে চলে গেছে। বাড়িঘর, আবাদী জমি হারিয়ে তিন শতাধিক পরিবার হয়েছে সর্বস্বান্ত। ভাঙনে পাল্টে যাচ্ছে কুশল নগরের মানচিত্র। 

বার বার জানানোর পরেও নদীভাঙন রোধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

গ্রামের বাসিন্দা জহুরুল হক, সুজা মিয়া, আমজাদ হোসেন ও নাজিম উদ্দিন বলেন, চলতি বর্ষা মৌসুমে কুশল নদীর পানি বেড়ে প্রবল স্রোত বইছে। প্রায় এক কিলোমিটার এলাকাজুড়ে ভাঙন চলছে। ফসলি জমির মাটি ভেঙে নদীতে আছড়ে পড়ছে। ভাঙনে বিভিন্ন স্থানে ফলের বাগান ও গাছপালা নদীতে হারিয়ে যাচ্ছে। এখন পর্যন্ত গ্রামের চার ভাগের এক ভাগ এলাকা বিলীন হয়ে গেছে। ভয়ে অনেকেই বসতঘর সরিয়ে নিচ্ছেন। গত কয়েকদিনে প্রায় ২০টি বসতভিটা বিলীন হয়ে গেছে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে গ্রামের শত শত ঘরবাড়ি নদীতে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।

ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

নুরুল ইসলাম নামে একজন বলেন, নদীভাঙনের কবল থেকে রক্ষা পেদে স্থানীয় প্রশাসনকে বার বার বলা হয়েছে। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি।

এ ব্যাপারে উপজেলার নিলক্ষিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তার বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে (ইউএনও) বিষয়টি অবগত করা হয়েছে। কিন্তু ভাঙনরোধে পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

তবে পাউবো জামালপুর কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ আবু সাঈদ বলেন, অতি শিগগিরই কুশলনগর গ্রাম পরিদর্শন করব এবং ভাঙনরোধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সম্প্রতি গ্রামটি পরিদর্শন করেছেন বকশীগঞ্জের ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা। আশা করি তিনি নদীভাঙন প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন।

এ বিষয়ে ইউএনও মুন মুন জাহান লিজা ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, সরেজমিনে কুশলনগর গ্রামের নদীভাঙন পরিদর্শন করেছি। বিষয়টি জেলা প্রশাসককে জানানো হয়েছে। জেলা প্রশাসক সমস্যাটি সমাধানের আশ্বাস দিয়েছেন। শিগগিরই ভাঙনরোধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About

Popular Links