Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফেসবুকে ‘হা হা রিঅ্যাক্ট’ দেওয়া নিয়ে বিবাদ মেটাতে গিয়ে মার খেলেন ছাত্রলীগ নেতা

মারধর  করা হয়েছে ওই ছাত্রলীগ নেতার পরিবারের সদস্যদেরকেও

আপডেট : ০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৫৬ পিএম

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে “হা হা রিঅ্যাক্ট” দেওয়া নিয়ে বিতর্কের জেরে জেলা ছাত্রলীগ নেতা জীব দাস সজলকে পিটিয়ে জখম করেছে বখাটেরা। শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর ধামরাই থানার নতুন দক্ষিণপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এছাড়া তার মা-বাবা ও বড় ভাইকেও মারধর করে আহত করেছে বখাটেরা।

আহত সজীব দাস সজল ঢাকা জেলা উত্তর ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক। শনিবার (৪ সেপ্টেম্বর) সকালে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ ঘটনায় ওই দিন রাতেই ধামরাই থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ছাত্রলীগ নেতার বাবা বিমল দাস।

ভুক্তভোগী ওই ছাত্রলীগ নেতা সজল বলেন, “পূর্ব শত্রুতার জেরে আমাকে টার্গেট করেই মারা হয়েছে। গতকাল (শুক্রবার) আমার বাসার সামনে আমার কর্মী নাজমুলকে মারধর করতে দেখে আমি বাঁধা দেই। তখন জানতে পারি, ফেসবুক গ্রুপের কোনো এক পোস্টে নাজমুল হাহা রিঅ্যাক্ট দিয়েছিলো। এটা নিয়েই বিতর্কের জেরে নাজমুলকে মারধর করছিলো রিপনসহ কয়েকজন। পরে আমি ওদের মিলিয়ে দেই। বিষয়টা নিয়ে আবারও এলাকায় মীমাংসা করা হয়।”

তিনি আরও বলেন, “মীমাংসার পরও আজ (শনিবার) দুপুরে তারা আমার ভাইকে বাড়ির পাশেই রাস্তায় মারধর করতে থাকেন রিপন, হালিম, সেলিমসহ কয়েকজন বখাটে। এরপর বাবা, মা ও আমি বাধা দিতে গেলে আমাদেরও মারধর করে তারা। এসময় আমার মাথায় রড দিয়ে আঘাত করে রক্তাক্ত করা হয়। পরে আশপাশের লোকজন চলে আসলে বখাটেরা পালিয়ে যায়।”

এ বিষয়ে ধামরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম জানান,  বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ওই ছাত্রলীগ নেতার পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। দুইপক্ষের মধ্যেই ঝামেলা হয়েছে। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বিবাদীদের পক্ষ থেকেও পাল্টা অভিযোগ দিয়েছে।

About

Popular Links