Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ধরা পড়ছে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ, কেজি ৫০০ টাকা

বেশি বেশি ইলিশ ধরা পড়ায় আড়তদার ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি খুশি ট্রলার মালিক ও জেলেরা

আপডেট : ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:২৩ পিএম

দেশের অন্যতম বৃহৎ মাছের আড়ত পটুয়াখলীর মহিপুর-আলীপুর বাজার সয়লাব হয়ে গেছে রুপালি ইলিশে। পটুয়াখালী উপকূলে জেলেদের জালে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ ধরা পড়ায় এই বাজারে কমেছে ইলিশের দামও। ৫০০ থেকে ৯০০ গ্রামের প্রতিকেজি ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকা দরে। আর তার চেয়ে ছোট ইলিশ মিলছে আড়াইশ’ টাকা কেজি দরে।

দাম কমার ফলে আড়তে ইলিশের বেচাকেনাও বেড়েছে। কর্মচাঞ্চল্য ফিরছে মহিপুরের মৎস্য আড়তগুলোতে। 

প্রতিদিনই ঘাটে ভিড়ছে সাগর থেকে আসা ইলিশভর্তি সারি সারি ট্রলার। বড় সাইজের ইলিশ ধরা পড়ার খবরে অনেক পাইকারও ভিড় জমিয়েছেন আড়তে। 

গত তিন দিনে তিন হাজার মণের বেশি ইলিশ বিক্রি হয়েছে বলে জানিয়েছেন আড়তের মালিকরা।

বেশি ইলিশ ধরা পড়ায় আড়তদার ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি খুশি ট্রলার মালিক ও জেলেরা। 

আড়ৎ সূত্র জানায় গত কয়েক দিন ধরে প্রতিদিন গড়ে ৩০ টন ইলিশ আলীপুর আড়তে আসছে । মাছের সরবরাহ বেশি থাকায় দাম কিছুটা কমেছে। দেড় কেজি ওজনের প্রতিমণ ইলিশের পাইকারি দাম ৪৪-৪৫ হাজার টাকা, এক কেজি সাইজের ইলিশের পাইকারি দাম ৩৭-৪০ হাজার টাকা, ৫০০-৯০০ গ্রাম সাইজের ইলিশের দাম ১৮-২০ হাজার টাকা, জাটকা বিক্রি হচ্ছে ৯-১০ হাজার টাকায়। আগে শুধু জাটকা ইলিশের মণই ছিল ১৫-১৬ হাজার টাকা।   

বেশি ইলিশ ধরা পড়ার প্রভাব পড়েছে খুচরা বাজারেও। বাজারে ইলিশের পর্যাপ্ত সরবরাহ রয়েছে। এছাড়া অলিগলি, পাড়া-মহল্লায়ও ভোর থেকে রাত পর্যন্ত চলছে ভ্রাম্যমাণ বিক্রেতাদের ইলিশ বিক্রি। 

About

Popular Links