Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টিকার মেসেজে দেরি: কারণ জানাল অধিদপ্তর

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি এই সমস্যার সমাধান করতে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, টিকাদান কেন্দ্রে নির্দিষ্ট পরিমাণ টিকা একদিনে দেওয়া যায়।’

আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৪৬ পিএম

কোভিড টিকাদান কেন্দ্রগুলোর সক্ষমতার চেয়ে বেশি নিবন্ধন হওয়ায় টিকা গ্রহণের এসএমএস পেতে সমস্যা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মুখপাত্র অধ্যাপক ডা. মো. নাজমুল ইসলাম।

বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত ভার্চুয়াল স্বাস্থ্য বুলেটিনে এ কথা বলেন তিনি।

টিকা গ্রহণের এসএমএস পেতে সমস্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “টিকাদান কেন্দ্রের ধারণ ক্ষমতার চেয়ে অনেক বেশি নিবন্ধন হয়েছে। আমরা চেষ্টা করছি এই সমস্যার সমাধান করতে। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে, টিকাদান কেন্দ্রে নির্দিষ্ট পরিমাণ টিকা একদিনে দেওয়া যায়। এর চেয়ে বেশি টিকা দিতে গেলে হয়তো আমাদের অনেক কিছু আপোষ করতে হবে। স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টিও সেখানে রয়েছে। সেগুলো সমাধানের চেষ্টা আমরা করছি।”

তিনি আরও বলেন, “সিনোফার্মের সঙ্গে ইনসেপটা ফার্মাসিউটিক্যালসের যে চুক্তি হয়েছিল- বাংলাদেশে টিকা প্রক্রিয়াজাত হবে সেই কাজ চলছে। তারা সময় চেয়েছিল, তিন মাসের মতো সময় লাগবে সব কাজ গুছিয়ে আনতে। আশাকরি ইতিবাচক তথ্য পাব।”

ডা. মো. নাজমুল ইসলাম বলেন, “শনাক্তের হার শতকরা হিসেবে ১০ শতাংশের নিচে আছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে আমরা খানিকটা স্বস্তিতে থাকতে পারবো। গত ৩০ দিনে সংক্রমণ নিম্নমুখী আছে। গত চার দিন ধরে শনাক্তের হার ১০ শতাংশের নিচে আছে। আমরা আশা করি এটি আরও কমে গেলে আমাদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যাওয়ার কাজটি সহজ হবে।”

About

Popular Links