Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মাকে হেনস্তার ভিডিও প্রবাসী সন্তানদের পাঠিয়ে চাঁদা দাবি

এ ঘটনায় অভিযুক্ত চারজনকে পুলিশ শনাক্ত করেছে। তাদের গ্রেপ্তার করতে অভিযান চলছে

আপডেট : ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১৩ পিএম

সিলেটের কানাইঘাট উপজেলায় চাঁদা দাবি করে মাকে হেনস্তার ভিডিও সন্তানদেরকে পাঠিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে চার দুর্বৃত্ত। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী নারী।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, গত ২৩ আগস্ট মাঝরাতে নিজের বাড়িতে হেনস্তার শিকার হন ওই নারী। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, ওই নারীকে কয়েক যুবক মিলে হেনস্তা করছে। ঘরের বাইরে থেকে জানালা দিয়ে ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছে। 

অভিযুক্তরা ওই নারীর প্রবাসে থাকা দুই ছেলের কাছে সেই ভিডিও পাঠিয়ে পাঁচ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এতে তারা উদ্বিগ্ন হয়ে ভিডিও ধারণকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে কিছু টাকা-পয়সা দিয়ে ভিডিও উদ্ধারের চেষ্টা করেন। 

এ নিয়ে গত বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) গ্রাম সালিশের মাধ্যমে চার লাখ টাকার বিনিময়ে ভিডিওর বিষয়টি সমাধানের সিদ্ধান্ত হয়। অভিযুক্তদের অগ্রিম ১ লাখ টাকাও দেওয়া হয়েছিল। আর বাকি টাকা শনিবার দেওয়ার কথা ছিল, কিন্তু টাকা না পেয়ে অভিযুক্তরা ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে কানাইঘাট থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনাটি গত ২৩ আগস্ট ঘটলেও তার এলাকার পঞ্চায়েত নিজেদের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রেখে সালিশের মাধ্যমে সমাধানের চেষ্টা করছিলেন। তবে সোমবার ফেসবুকে ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে তা পুলিশের নজরে আসে। রাতে ওই নারীকে থানায় নিয়ে এসে মামলা নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, মামলায় যে চারজনকে আসামি করা হয়েছে তারা ওই নারীর স্বজন। মূলত তাকে ব্লাকমেইল করতেই হেনস্তার ভিডিও ধারণ করেছিল তারা। এ চারজনকে পুলিশ শনাক্ত করেছে। তাদের গ্রেপ্তার করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

ওই নারীর স্বজনরা জানিয়েছেন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ওই নারীর দুই ছেলে প্রবাসে থাকেন। আর দুই মেয়ে বিবাহিত। তিনি একাই বাড়িতে থাকেন। ঘটনার পরদিন তিনি কাউকে না জানিয়েই তার বাবার বাড়িতে চলে যান।

পুলিশ কর্মকর্তা জাহিদ জানান, সোমবার পুলিশ ওই গ্রামে গিয়েছে। তারা সেখানকার পঞ্চায়েতে থাকা ব্যক্তিদের সঙ্গেও কথা বলেছে। পঞ্চায়েতরা অভিযুক্ত চারজনকে থানায় সোপর্দ করবেন বলে জানিয়েছেন। তবে তারা এখনও পলাতক আছে। তাদের ধরতে অভিযান চলছে।

About

Popular Links