Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এক যুগ ধরে বাবুগঞ্জের কাদের খাঁন সড়কের বেহাল দশা

উঠে গেছে ইটের কার্পেটিং। বৃষ্টি হলেই পানি জমে রাস্তা পুকুরে পরিণত হয়

আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৩৫ পিএম

বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার চাঁদপাশা ইউনিয়নের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি রাস্তা বীর মুক্তিযোদ্ধা কাদের খাঁন সড়ক। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন শত শত মানুষ যাতায়াত করেন। কিন্তু বর্ষা এলেই সড়কটির চলাচলের প্রায় অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

এক যুগের বেশি সময় ধরে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ জনসাধারণকে।

ইউনিয়নের আরজিকালিকাপুর এলাকার ব্যস্ততম এ সড়ক দিয়ে নোমরহাট হয়ে উপজেলা সদর এবং রেন্ট্রিতলা হয়ে টেপের হাট যাতায়াত করেন ইউনিয়নের হাজারো মানুষ। 

শুকনো মৌসুমে কোনোভাবে চলাচল করা গেলেও বর্ষা মৌসুমে এ সড়কে চলতে গিয়ে এলাকাবাসীকে অনেক ভোগান্তি পোহাতে হয়। 

দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় আড়াই কিলোমিটার দীর্ঘ এ সড়কে অজস্র খানাখন্দ হয়ে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। পাশে খাল থাকায় কোনো জায়গায় ভেঙে একেবারে সরু হয়ে গেছে। কোথাও আবার উঠে গেছে ইটের কার্পেটিং। বৃষ্টি হলেই পানি জমে রাস্তা পুকুরে পরিণত হয়।

সরেজমিনে দেখা যায়, সড়ক নির্মাণে ব্যবহৃত ইট উঠে রাস্তা ভেঙে গেছে। সৃষ্টি হয়েছে ছোট-বড় গর্ত। আর এতে ঘটছে দুর্ঘটনা। 

এ বিষয়ে ভুক্তভোগী আরজিকালিকাপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের  শিক্ষক মনির হোসেন বলেন, রাস্তাটি দিয়ে দৈনিক প্রায় দুই-তিন হাজার মানুষ চলাচল করে। যুগ পেরিয়ে গেলেও বীর মুক্তিযোদ্ধা কাদের খাঁন সংযোগ সড়কটিতে উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। ইটের রাস্তা শুধু নামেই, কাজে শুধু জনগণের ভোগান্তি। এতে সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েন অসুস্থ ব্যক্তি ও প্রসূতি নারীরা। 

ক্ষোভ প্রকাশ করে স্থানীয়রা বলেন, ভোট এলেই এই সড়ক সংস্কার করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতির দেন জনপ্রতিনিধিরা। কিন্তু নির্বাচন পার হয়ে গেলে তাদের আর খুঁজে পাওয়া যায় না। তাদের দাবি, শিগগিরই এ সড়কের সংস্কার করে যেন মানুষকে ভোগান্তি থেকে রক্ষা করা হয়। 

এ বিষয়ে বরিশাল-৩ (বাবুগঞ্জ-মুলাদী) আসনের সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু বলেন, “ওই ইউনিয়নে কাদের খাঁন সড়কসহ আরও কয়েকটি রাস্তা পিজিপি প্রকল্পে পাশ হয়েছে। অন্য রাস্তাগুলোও টেন্ডার হয়ে আছে। করোনাভাইরাসের কারণেও সব কিছু এলোমেলো। ঠিকাদার কাজ বুঝেও নিয়েছেন। এখনও রাস্তার কাজ কেন পিছিয়ে আছে, তা আমি সুনিদিষ্টভাবে বলতে পারব না।”

তবে বিষয়টি দেখবেন বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য মিজানুর রহমান বলেন, “আমার বাবা বীর মুক্তিযোদ্ধা কাঁদের খান তিনি ছিলেন বাবুগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতাকালীন সক্রিয় নেতা। অথচ তার নামে নামকরণ হওয়া রাস্তা ইউনিয়নবাসীর চলাচলে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই রাস্তার কারণে আজও মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়নি।”

তিনি আরও বলেন, “এই আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপুর কাছেও রাস্তার জন্য কয়েকবার গিয়েছি। তিনি বিভিন্ন অজুহাত দিয়ে ফিরিয়ে দিয়েছেন।”

৪ নম্বর চাঁদপাশা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, “চাঁদপাশা ইউনিয়নে প্রায় ৮-১০ কিলোমিটার কাদের খাঁন সড়কসহ আরও বেশ কিছু ইটের রাস্তার খুবই খারাপ অবস্থা।” 

এ বিষয়ে এমপির ব্যক্তিগত সহকারীর সঙ্গে কথা হয়েছে বলে তিনি জানান।



About

Popular Links