Friday, June 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভাষাসৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেনের ইন্তেকাল

তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে একমাস ধরে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫৬ পিএম

ভাষাসৈনিক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন (৮৬) ইন্তেকাল করেছেন। তিনি বার্ধক্যজনিত কারণে একমাস ধরে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

ইসমাইল হোসেন মৃত্যুকালে স্ত্রী, এক ছেলে, এক মেয়ে, নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি মেহেরপুর শহরের টিঅ্যান্ডটিপাড়ার বাসিন্দা ও জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক।

শুক্রবার বাদ জুম্মা মেহেরপুর হোটেল বাজার জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে জানাজা শেষে পৌর কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন মরহুমের একমাত্র জামাতা অ্যাডভোকেট মোখলেসুর রহমান স্বপন।

উল্লেখ্য, ১৯৫৩ সালে ২১ ফেব্রুয়ারি পালন করতে গিয়ে পুলিশের নির্যাতনসহ কারাবরণ করেন ভাষা সৈনিকরা। ১৯৫৫ সালে মেহেরপুর উচ্চ ইংরেজি মডেল স্কুলের ছাত্ররা একুশে ফেব্রুয়ারি ক্লাস থেকে বেরিয়ে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে মিছিল নিয়ে শহরে বের হয়। শিক্ষকরা শত বাধা ও ভয়ভীতি দেখিয়েও ২১ উদযাপন বন্ধ করতে পারেনি। শিক্ষকদের আদেশ অমান্য করে একুশে ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে শামসুল আলা, গোলাম কবির, আবুল কাশেম আঙ্গুর, নজির হোসেন বিশ্বাস, কদম রসুল, ইসমাইল হোসেনসহ ছাত্ররা মিছিল করে। এ অপরাধে উল্লেখিত ছাত্রদের রাতে পুলিশ আটক করে এবং স্কুল থেকে তাদের রাসটিকেট দেওয়া হয়। সে সময় ইসমাইল হোসেন ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্র ছিলেন এবং ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করছিলেন। 

About

Popular Links