Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আসছে টাইটানিক-২

১৯১২ সালের ১৫ এপ্রিল হিমশৈলের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায় টাইটানিক। পরে ১৯৯৭ সালে ওই ঘটনার ওপর ভিত্তি করে নির্মাণ করা হয় চলচ্চিত্র ‘টাইটানিক’।

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০১৮, ০৫:৫৪ পিএম

টাইটানিককে ভুলবে না কেউ। সেই ১৯১২ সালে প্রথম যাত্রায় মাঝ আটলান্টিকে ডুবে যায় যাত্রীবাহী এই জাহাজটি। রেখে যায় শোকের স্মৃতি। আর এ কারণেই টাইটানিকের প্রতি মানুষের ভালোবাসা এখনও কমেনি। সে চিন্তা মাথায় রেখেই হয়তো আবার নির্মাণ করা হচ্ছে হুবহু আরেকটি টাইটানিক। 

সংবাদমাধ্যম সিএনএন’এর খবরে বলা হয়, টাইটানিক পুনর্নির্মাণের এই প্রকল্প হাতে নিয়েছেন ক্লাইভ পালমার নামের অস্ট্রেলিয়ার এক ব্যবসায়ী। ২০২২ সালে টাইটানিক ট্রাজেডির ১২০ বছর পূর্তিতে সেটি যাত্রা করবে। 

নতুন এই টাইটানিক নির্মাণে খরচ হচ্ছে ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আর সেটি বহন করতে পারবে ২ হাজার ৪০০ যাত্রী ও ৯০০ ক্রু। নতুন টাইটানিকের যাত্রাপথও হবে একই। ইংল্যান্ডের সাউথহ্যাম্পটন থেকে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে যাবে সেটি। তবে এর আগে সিঙ্গাপুর থেকে দুবাই হয়ে সাউথহ্যাম্পটন যাবে নয়া টাইটানিক। এ ছাড়া যাত্রী ও পর্যটক নিয়ে সারা বিশ্ব ঘুরবে জাহাজটি। 

টাইটানিক নির্মাণের এই প্রকল্প অবশ্য বেশ আগে হাতে নেন পালমার। ২০১২ সালে ঘোষণার পর বিনিয়োগের অভাবে ২০১৫ সালে তা স্থগিত করা হয়। পরে চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে প্রকল্পটি আবার নতুন করে শুরু করার ঘোষণা দেন পালমার।  

১৯১২ সালের ১৫ এপ্রিল হিমশৈলের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ডুবে যায় টাইটানিক। পরে ১৯৯৭ সালে ওই ঘটনার ওপর ভিত্তি করে নির্মাণ করা হয় চলচ্চিত্র ‘টাইটানিক’। ছবিটি সেসময় আভাবনীয় সাড়া ফেলে। মূল দুই চরিত্র জ্যাক ও রোজ দর্শকদের মনে আলাদা আবেগের সৃষ্টি করে। সেই আবেগকেই হয়তো কাজে লাগাতে চাচ্ছেন ব্যবসায়ী পালমার। 

About

Popular Links