Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মানসিক স্বাস্থ্য বিল ২০১৮: মানসিক অসুস্থতার মিথ্যা সনদ দিলে জেল-জরিমানা

মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় পেশাজীবী হিসেবে নিয়োজিত কোনও ব্যক্তি উদ্দেশ্যপ্রণেদিতভাবে মিথ্যা সনদ দিলে ৩ লাখ টাকা জরিমানা, একবছর কারাদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে হবে।

আপডেট : ২৫ অক্টোবর ২০১৮, ০৯:০৯ পিএম

মানসিক অসুস্থতার জাল সনদ দিলে জেল-জরিমানার বিধান রেখে জাতিয় সংসদে মানসিক স্বাস্থ্য বিল ২০১৮ পাস হয়েছে। এই বিলে সরকারি অনুমোদন ছাড়া মানসিক হাসপাতাল চালালেও জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে। 

বিলটি গত ১৮ সেপ্টেম্বর সংসদে উত্থাপন করলে পরে তা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটিতে পাঠানো হয়। এরআগে ১৬ জুলাই বিলটি মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেওয়া হয়।

১৯১২ সালের একটি আইনকে হালনাগাদ করে নতুনভাবে বাংলায় রূপান্তার করে এই বিলটি আনা হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সংসদে বিলটি প্রস্তাব করেন। পরে বিলটির ওপর আনীত বাছাই কমিটিতে পাঠানো ও সংশোধন প্রস্তাব নিষ্পত্তি শেষে কণ্ঠভোটে তা পাস হয়।

পাস হওয়া বিলে সরকারি অনুমোদন ছাড়া মানসিক হাসপাতাল চালালে সর্বোচ্চ পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা এবং একই অপরাধের পুনরাবৃত্তি হলে ২০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে।

পাস হওয়া বিলে বলা হয়েছে, মানসিক স্বাস্থ্যসেবায় পেশাজীবী হিসেবে নিয়োজিত কোনও ব্যক্তি উদ্দেশ্যপ্রণেদিতভাবে মিথ্যা সনদ দিলে ৩ লাখ টাকা জরিমানা, একবছর কারাদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে হবে।

বিলে মানসিক স্বাস্থ্যসেবা কার্যক্রমের জন্য পরিচালক পদমর্যাদার একজন কর্মকর্তাকে দিয়ে একটি অধিদফতর প্রতিষ্ঠা করা হবে। জেলা পর্যায়ে মানসিক স্বাস্থ্য রিভিউ মনিটরিং কমিটি গঠনের কথা বলা হয়েছে, যার সভাপতি হবেন জেলা প্রশাসক।

এই বিলে কার্যকরের ৯০ দিনের মধ্যে যে মানসিক হাসপাতালগুলো আছে সেগুলোকে লাইসেন্স নিতে হবে। এই আইন লঙ্ঘন করলে শাস্তি পেতে হবে। বেসরকারি মানসিক হাসপাতাল স্থাপনের লাইসেন্স দেওয়া, নবায়ন, ফি বিধি দিয়ে নির্ধারণ করা হবে।



About

Popular Links