Friday, May 31, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লা হত্যাকাণ্ডের পেছনের রহস্য উদঘাটনের দাবি

যেকোনো সময় মূল আসামিদের গ্রেপ্তার সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন তারা

আপডেট : ০৬ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৪১ পিএম

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে শরণার্থী নেতা মুহিবুল্লা হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন করতে পেরেছে বলে দাবি করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে কক্সবাজার জেলা পুলিশসহ নানা তদন্তকারী সংস্থা হত্যাকাণ্ডের পেছনের খবর জেনে গেছে। যেকোনো সময় হত্যাকাণ্ডের মূল আসামীদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব হবে বলে জানিয়েছেন জেলা পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান।

বুধবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে কক্সবাজার জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন পুলিশ সুপার।

তিনি বলেন, “রোহিঙ্গা নেতা মুহিবুল্লা হত্যাকাণ্ডের পর ক্যাম্পে জেলা পুলিশের পাশাপাশি এপিবিএন, সিআইডি থেকে শুরু করে অনেক তদন্তকারী সংস্থা সবাই মিলে একযোগে কাজ করছি। যদিও জেলা পুলিশ মামলার তদন্তের কাজটি করছে। তবে ঘটনার রহস্য এবং ঘটনার পেছনে সরাসরি কারা যুক্ত, এসব বিষয়ে আমরা একটি ধারণা পেয়ে গেছি। সেদিক দিয়ে আমরা বলতে পারি যে তদন্তের কাজ অনেক এগিয়েছে। একারণে ঘটনার মূল অভিযুক্তদের খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হবো।”

ক্যাম্পে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা বাড়ানোর কথা উল্লেখ করে পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান আরও বলেন, “হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় ইতোমধ্যে যারা গ্রেপ্তার হয়েছে, আমরা তাদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করছি এবং বিভিন্ন উৎস থেকে আসা নানা তথ্য নিচ্ছি। তদন্তাধীন বিষয় সবকিছু উম্মুক্ত করা যায় না। আমরা আমাদের মতো করে মামলার তদন্ত কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি। এতে আমরা আশান্বিত।’  

এদিকে, মহিবুল্লা হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার আরও ৩ জনকে আদালতের মাধ্যমে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য প্রত্যেককে ৩ দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। বুধবার (৬ অক্টোবর) দুপুরে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তামান্না ফারাহর আদালত এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।


আরও পড়ুন: মুহিবুল্লা হত্যা: তিনদিনের রিমান্ডে আরও ৩ রোহিঙ্গা


এর আগে সকালে উখিয়ার কুতুপালং লম্বাশিয়া ১ ইস্ট রোহিঙ্গা ক্যাম্প ১৫ ব্লকের বাসিন্দা জকির আহমদের ছেলে জিয়াউর রহমান, লম্বাশিয়া ৮ ডাব্লিউ ক্যাম্পের এইচ ৫৪ নং ব্লকের মৃত মকবুল আহমদের ছেলে মোহাম্মদ সালাম ও ৫নং ক্যাম্পের রজক আলীর ছেলে মো. ইলিয়াছকে আদালতে আনেন পুলিশ। এ নিয়ে এই মামলার ৫জন রোহিঙ্গা যুবকের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।


আরও পড়ুন: মুহিবুল্লা হত্যাকাণ্ডে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার নিন্দা


গত বুধবার (২৯ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৮টার দিকে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের হাতে নিহত হন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ নেতা মুহিবুল্লা। এসময় নিজ অফিসে অস্ত্রধারীরা তার বুকে পরপর ৫ রাউন্ড গুলি করে। এসময় ৩ রাউন্ড গুলি তার বুকে লাগে। এতে সে ঘটনাস্থলে পড়ে যায়। খবর পেয়ে এপিবিএন সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে “এমএসএফ” হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। 

এঘটনায় নিহত মুহিবুল্লার ভাই হাবিবউল্লা বাদি হয়ে উখিয়া থানায় অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

About

Popular Links