Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কুমিল্লা নগরীর যানজট নিরসনে অভিযানে নামছে প্রশাসন

২ ফেব্রুয়ারি থেকে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, যত্রতত্র প্যাকিং ও  চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে

আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:০১ পিএম

কুমিল্লা নগরীর যানজট নিরসনে নানা সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন ও সিটি কর্পোরেশন। এর অংশ হিসেবে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, যত্রতত্র প্যাকিং ও  চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

রবিবার (৩০ জানুয়ারি) সকালে কুমিল্লা সার্কিট হাউজে নগরীর যানজটসহ নানা সমস্যা সমাধানে ঘণ্টা ব্যাপী আলোচনা হয়।

সভায় সিটি মেয়র মো. মনিরুল হক সাক্কুর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সদর আসনের সংসদ বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার। এছাড়াও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ও পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ প্রমুখ।

সভার কার্যবিবরণী নিয়ে বিকেলে সাংবাদিক সঙ্গে মতবিনিময় সভায় কথা বলেন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. সফিকুল ইসলাম।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, “৩১ জানুয়ারি ও পহেলা ফেব্রুয়ারি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ বিষয়ে মাইকিং করা হবে। ২ ফেব্রুয়ারি থেকে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করা হবে। সকল শপিং কমপ্লেক্স ও মার্কেটের নিচতলায় পার্কিং থাকতে হবে। অন্যথায় নিচ তলার মালামাল জব্দ করে পার্কিং এর জন্য উন্মুক্ত করা হবে। কোনো সংগঠন বা সংস্থার পক্ষে কোনো প্রকার গেইট বা তোরণ করা যাবে না।”

কুমিল্লা সার্কিট হাউজে নগরীর যানজটসহ নানা সমস্যা সমাধানে ঘণ্টা ব্যাপী আলোচনা হয়/ ঢাকা ট্রিবিউন

নগরীর সড়কে জিবির নামে চালকদের থেকে অর্থ আদায়ের অভিযোগ বহু বছরের এ বিষয়ে প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বলেন, “যদি কাউকে অবৈধ চাঁদা উত্তোলনে পাওয়া যায়, তাহলে তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির মামলাসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। সে যেই হোক, এ বিষয়ে কাউকে ছাড় নয়। বড় বাসগুলো কান্দিরপাড় প্রবেশ করতে পারবে না।”

এছাড়া রাজগঞ্জ মোড় থেকে কান্দিরপাড় মোড় পর্যন্ত একমুখী গাড়ি চলবে। পুলিশ লাইন-ঝাউতলা বাদুরতলা, কান্দিরপাড়, রাজগঞ্জ থেকে চকবাজার রোডে বা রোডের দুইপাশে ফুটপাথের সকল অবৈধ দোকান, যানবাহন, স্থাপনা ও অন্যান্য সামগ্রী উচ্ছেদ করা হবে বলেও জানান তিনি।

কান্দিরপাড় বা কাছাকাছি এলাকায় শৌচাগার নির্মাণ হবে কিনা এমন প্রশ্নের জাবাবে ড. সফিকুল ইসলাম বলেন, “বিষয়টি নোট রাখা রাখা হয়েছে। পূর্বেও আলোচনা হয়েছে। যদি স্থান নির্বাচন করা যায়। গণ-শৌচাগার নির্মাণ করা হবে।”

নগরীর জন দুর্ভোগ নিয়ে প্রবীণ সাংবাদিক ও সংগঠক আবুল হাসানাত বাবুল বলেন, “সমস্যা সমাধানের কথা যাদের, তারা সমস্যা ভোগ করেন না। তারা ব্যক্তিগত গাড়ি ব্যবহার করেন। ফলে গণমানুষের ভাষা তারা বুঝেন না। প্রতিবার শহরের সমস্যা সমাধানে নানা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়, তা যদি অর্ধেকও বাস্তবায়নের আলো দেখতো এবং মানুষের মুক্তি মিলতো।”

About

Popular Links