Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

২১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুট

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ২১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাওয়ার রুট ম্যাপ চূড়ান্ত করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২২, ০৭:৫৯ পিএম

ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ২১ ফেব্রুয়ারি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাওয়ার রুট ম্যাপ চূড়ান্ত করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) কেন্দ্রীয় সমন্বয় কমিটি। নতুন রুট ম্যাপ আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টা থেকে কার্যকর হবে।

শুক্রবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) আব্দুল মতিন চৌধুরী অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ঢাবি উপাচার্য ড. মো. আখতারুজ্জামান এ তথ্য জানিয়েছেন।

যেসব রাস্তা দিয়ে আসা-যাওয়া করা যাবে:

মানচিত্র অনুযায়ী, আজিমপুর কবরস্থান সড়ক ও পুরাতন হাইকোর্ট সড়ক, দোয়েল ক্রসিং, বাংলা একাডেমী, টিএসসি ক্রসিং, উপাচার্যের বাসার পাশের রাস্তা, নিউমার্কেট ক্রসিং ও কবরস্থানের উত্তর গেট দিয়ে মানুষ বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় প্রবেশ করতে পারবে।

আজিমপুর ও পলাশী ক্রসিং হয়ে গার্হস্থ্য অর্থনীতি কলেজ ও ইডেন কলেজের রাস্তা দিয়েও শহীদ মিনারে যাওয়া যাবে। এছাড়া চানখারপুল এলাকা থেকে বকশীবাজার ক্রসিং হয়ে পলাশী মোড় হয়ে স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম হল ও জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তা দিয়ে শহীদ মিনারে যাওয়া যাবে।

যে দুটি রাস্তা দিয়ে শুধু প্রস্থান করা যাবে:

পুষ্পস্তবক অর্পণের পর জনসাধারণ শহীদ মিনারের সামনে হয়ে চানখাঁরপুল দিয়ে বের হতে পারবেন। আবার শহীদ মিনার থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠের সামনে হয়ে দোয়েল চত্বর দিয়েও বের হওয়া যাবে। তবে ওই পথে কেউ প্রবেশ করতে পারবেন না।

যেসব রাস্তা বন্ধ থাকবে:

টিএসসি থেকে জগন্নাথ হলের পূর্ব পাশের রাস্তা সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে। উপাচার্য ভবন গেট থেকে ফুলার রোড মোড় পর্যন্ত ও চাঁনখারপুল থেকে কার্জন হল পর্যন্ত রাস্তা ২০ ফেব্রুয়ারি রাত ৮ টা থেকে জনসাধারণের যাতায়াতের জন্য সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।

ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান বলেন, “সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে পলাশী মোড় থেকে শহীদ মিনার পর্যন্ত রাস্তায় তিন ফুট পরপর চিহ্ন থাকবে। এ চিহ্ন অনুসরণ করে সবাই পর্যায়ক্রমে শহীদ মিনারে যাবেন এবং পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এক্ষেত্রে যথাযথভাবে রুটম্যাপ অনুসরণ করতে হবে।”

তিনি আরও বলেন, “করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে জনসমাগম এড়াতে গত বছরের মতো এবারও সংগঠন ও প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে সর্বোচ্চ পাঁচজন এবং ব্যক্তি পর্যায়ে সর্বোচ্চ দুজন একসঙ্গে শহীদ মিনারে বেদিতে ফুল দিতে বা পুষ্পস্তবক অর্পণ করতে পারবেন। এক্ষেত্রে সবাইকে অবশ্যই যথাযথভাবে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে মাস্ক পরতে হবে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।”

About

Popular Links