Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জ্বীনের বাদশা সেজে প্রতারণা, অবশেষে গ্রেপ্তার

গভীর রাতে মোবাইলে কল দিয়ে বাড়ির পাশের পুকুরে সাত কলস স্বর্ণ রাখা আছে বলে জানায় প্রতারক চক্র

আপডেট : ০৯ মার্চ ২০২২, ০৫:৩৯ পিএম

ঝিনাইদহ শহরে মোবাইল ফোনে প্রতারণার মধ্যমে এক নারীর কাছ থেকে নগদ টাকা ও স্বণার্লাংকার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে জ্বীনের বাদশা চক্রের চার সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জ এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন, গাইবান্ধা গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার বিশ্বনাথপুর গ্রামের রায়হান হোসেন (২৫) ও তুহিন হোসেন (২০), জিয়াউর রহমান (২২) ও শাকপালা গ্রামের মিলন দাস (৩৫)।

শনিবার দুপুরে ঝিনাইদহ পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলাম।

পুলিশ সুপার জানান, গত বছরের ৩ নভেম্বর উপজেলার খাজুরা গ্রামের ভুক্তভোগী রেনুকা খাতুনকে গভীর রাতে মোবাইলে কল দেয় ওই প্রতারক চক্র। রেনুকার বাড়ির পাশের পুকুরে সাত কলস স্বর্ণ রাখা আছে, সেটা পেতে হলে জায়নামাজ ক্রয়ের জন্য হাদিয়া হিসেবে ৫৬০ টাকা দাবি করে তারা। রেনুকা খাতুন নগদ একাউন্টের মাধ্যমে টাকা দেন। পরে তার কাছ থেকে চার ভরি স্বর্ণালংকার ও নগদ ছয় লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় ওই চক্র। প্রতারণার বিষয়টি টের পেয়ে ওই নারী গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ঝিনাইদহ সদর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে একটি মামলা করেন।

তিনি আরও জানান, মামলা দায়েরের পর ঝিনাইদহ জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন সেল বিকাশ ও নগদ একাউন্টের সূত্র ধরে প্রতারকদের চিহ্নিত করে অভিযান চালিয়ে গাইবান্ধা জেলার গোবিন্দগঞ্জের দুর্গম এলাকা থেকে ওই চার জনকে গ্রেপ্তার করে।

শনিবার দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

About

Popular Links