Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বাংকারে সুস্থ আছেন বাংলাদেশের নাবিকেরা

বৃহস্পতিবার জাহাজটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে ২৮ জন নাবিক ও প্রকৌশলীকে সরিয়ে নেওয়া হয় নিরাপদ স্থানে

আপডেট : ০৪ মার্চ ২০২২, ০৯:৪২ পিএম

ইউক্রেনে রকেট হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত এমভি বাংলা সমৃদ্ধির জীবিত ২৮ নাবিককে জাহাজ থেকে সরিয়ে নিয়ে একটি বাংকারে রাখা হয়েছে। তারা সুস্থ আছেন বলে জানিয়েছে তাদের পরিবার। তবে বাংকার থেকে তারা কখন পরবর্তী গন্তব্যে রওনা হবেন সে বিষয়ে কোনো তথ্য তারা জানাতে পারেননি।

শুক্রবার (৪ মার্চ) সকালে জাহাজের চিফ ইঞ্জিনিয়ারসহ দু’জন পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানিয়েছেন একথা।

পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন জানিয়েছেন, প্রথমে তাদের পোল্যান্ডে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা হলেও যুদ্ধের পরিস্থিতি বিবেচনা করে এখন তাদের মলদোভা হয়ে রোমানিয়ায় নিয়ে যাওয়া হবে। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যায় জাহাজ থেকে ২৮ নাবিক নামার আগেই এর মাস্টার জাহাজটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন।

মুম্বাই থেকে তুরস্ক হয়ে ২২ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে যায় বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের জাহাজ বাংলার সমৃদ্ধি। কিন্তু রাশিয়া ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করলে ২৯ জন ক্রু নিয়ে জাহাজটি আটকা পড়ে।

গত বুধবার সন্ধ্যায় রকেট হামলায় জাহাজের ব্রিজ ধ্বংস হয়ে যায়, মৃত্যু হয় থার্ড ইঞ্জিনিয়ার মো. হাদিসুর রহমানের। ক্ষোভ আর উদ্বেগের মধ্যে বৃহস্পতিবার জাহাজটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করে ২৮ জন নাবিক ও প্রকৌশলীকে সরিয়ে নেওয়া হয় নিরাপদ স্থানে।

হাদিসুর রহমানের মরদেহ সংরক্ষণের জন্যও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে পোল্যান্ডের ওয়ারশতে বাংলাদেশ দূতাবাস এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে।

বাংলার সমৃদ্ধির চিফ ইঞ্জিনিয়ার ওমর ফারুক তুহিনের মা মোসাম্মৎ খায়রুন নেছা বলেন, “সেখানে আটকা পরার পর থেকে প্রতিদিন ফোনে কথা হত কিন্তু গত দুইদিন আর ফোন করতে পারছে না। শুধু ভয়েস মেসেজ পাঠাচ্ছে আমার ছেলে ও ভাইকে। বলেছে- ‘আম্মুকে বলো, আমার জন্য দোয়া করতে’ শিপ থেকে নেমে গেছে এখন বাংকারে অবস্থান করছে।”

ওমর ফারুক তুহিনের ছোট ভাই ওমর শরীফ তুষার বলেন, “আজ সকাল ৯টার দিকে মেসেজ পাঠিয়েছিলাম জবাবে বলেছে, ‘বাংকারে আছি, সুস্থ আছি’। অন্য নাবিকরা বেশিরভাগই তখন ঘুমচ্ছিলেন। তখন ভোর রাত সবাই ভালো আছেন বলে জানিয়েছেন। তবে সেখান থেকে কখন মুভ করবে সে বিষয়ে কিছু জানাতে পারেনি। যেহেতু নিরাপত্তার বিষয় আছে তবে ওখানে বেশ ঠাণ্ডা, তাপমাত্রা কম।”

জাহাজের ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমানের ভায়রা আবদুল্লাহ আল মামুন বলেছেন, “জাহাজ থেকে নামার পর উনারা সবাই বাংকারে আছেন এবং নিরাপদে আছেন।”

About

Popular Links