Thursday, June 13, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দাদা-দাদির পাশেই চিরনিদ্রায় শায়িত হাদিসুর

গত ২ মার্চ ইউক্রেনের অলিভিয়া সমুদ্রবন্দরে আটকে পড়া জাহাজ ‘বাংলার সমৃদ্ধি’তে রকেট হামলায় মৃত্যু হয় জাহাজটির থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফের

আপডেট : ১৫ মার্চ ২০২২, ১২:৪২ পিএম

ইউক্রেনের অলভিয়া বন্দরে রকেট হামলায় নিহত বাংলাদেশি জাহাজ “বাংলার সমৃদ্ধি”র থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমানের জানাজা ও দাফন শেষ হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৫ মার্চ) সকাল ১০টার দিকে নামাজের জানাজা শেষে বরগুনার বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাদা-দাদির পাশে তাকে দাফন করা হয়।


আরও পড়ুন- ঢাকায় পৌঁছেছে নাবিক হাদিসুরের মরদেহ


বেতাগী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা জিয়াউল হক হাদিসুর রহমানের জানাজার নামাজে ইমামতি করেন। এ সময় বরগুনা ১- আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু, বেতাগী উপজেলা চেয়ারম্যান মাকসুদুর রহমান ফোরকান, বেতাগী পৌর মেয়র কবির হোসেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, উপজেলা ভূমি কমিশনার, জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে সোমবার (১৪ মার্চ) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে তাকিস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট হাদিসুর রহমানের মরদেহ নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। রবিবার (১৩ মার্চ) রোমানিয়া থেকে ইস্তাম্বুল হয়ে হাদিসুরের মরদেহ ঢাকায় আসার কথা থাকলেও ইস্তাম্বুলে প্রবল তুষারঝড়ের কারণে মরদেহ বহনকারী ফ্লাইট সময় মতো উড়তে পারেনি।


আরও পড়ুন- জন্মভূমি কদমতলায় হাদিসুরের মরদেহ


পরে রাত ৯টা ৪০ মিনিটে বেতাগী উপজেলার হোসনাবাদ ইউনিয়নের কদমতলা গ্রামের বাড়িতে তার মরদেহ নিয়ে আসা হয়। হাদিসুরের লাশ বহনকারী ফ্রিজার ভ্যানটি গ্রামের বাড়িতে পৌঁছালে স্বজনদের আহাজারিতে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

গত ২ মার্চ ইউক্রেনের একটি সমুদ্রবন্দরে আটকে পড়া বাংলাদেশ শিপিং করপোরেশনের (বিএসসি) জাহাজ “বাংলার সমৃদ্ধি”তে রকেট হামলার ঘটনা ঘটে। এতে জাহাজটির থার্ড ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর রহমান আরিফ (২৯) মারা যান। তখন বিএসসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমোডর সুমন গণমাধ্যমকে জানান, রাত ৯টা ২৫ মিনিটে জাহাজের ব্রিজে ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ইঞ্জিনিয়ার হাদিসুর নিহত হন। এরপর থেকে জাহাজটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হয়।


আরও পড়ুন- পূরণ হলো না হাদিসুরের ঘর-সংসারের স্বপ্ন


হাদিসুরের মরদেহ ইউক্রেনের কাছে একটি বাঙ্কারে সংরক্ষিত ছিল। ইউক্রেনের যুদ্ধ পরিস্থিতি অবনতির কারণে হাদিসুরের মরদেহ ফিরিয়ে আনার প্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়।

উল্লেখ্য, ইউক্রেনে রুশ হামলা শুরুর পর লোড প্ল্যান বাতিল করে জাহাজের মালিকানাধীন কোম্পানি বিএসসি কার্গো এবং জাহাজের মাস্টারকে বন্দরে বার্থ না করে আন্তর্জাতিক জলসীমায় স্থানান্তরের নির্দেশ দেয়। বন্দরের ছাড়পত্র পেতে দেরি হওয়ায় বন্দর থেকে ছেড়ে যেতে ব্যর্থ হয় জাহাজটি এবং রুশ আক্রমণের পর বন্দরের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাওয়ায় সেটি আটকে পড়ে।

About

Popular Links