Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গান-বাজনায় নিষেধাজ্ঞা, ছাত্রীদের বোরকা পরার নির্দেশনা- যা বললেন সেই চেয়ারম্যান

চেয়ারম্যান খালেদ সাইফুল্লাহর ভাষ্য, চেয়ারম্যান হিসেবে আমার ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করার নিয়ম রয়েছে

আপডেট : ১৫ মার্চ ২০২২, ০৬:০৫ পিএম

সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার চরকাদিরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহর কিছু নির্দেশনা সম্বলিত একটি পোস্ট ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

চেয়ারম্যানের বরাত দিয়ে পোস্টে বলা হয়, ওই ইউনিয়নে কোনো বিয়ের অনুষ্ঠানে বাজানো যাবে না গান। বাজালে জরিমানা করা হবে ৭৫ হাজার টাকা। এছাড়াও যারা সাউন্ড বক্স ভাড়া দেন তাদের সাউন্ড বক্স এমন বাজেয়াপ্ত করা হবে কোনোদিন ফিরে পাবেন না। এতে মেয়েদের বোরকা পরার নির্দেশনা এবং শিক্ষার্থীদের মোবাইল ফোন ব্যবহারের বিষয়েও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়।

ফেসবুকে পোস্টটি করা হয় হাফেজ মনিরুল ইসলাম নামে একটি আইডি থেকে। তবে চেয়ারম্যান মাওলানা খালেদ সাইফুল্লাহর দাবি, পোস্টদাতা ব্যক্তিকে তিনি চেনেন না। ওই ব্যক্তি তার সতর্কবার্তাকে ভিন্নভাবে প্রচার করছেন।

তিনি বলেন, “আমি ওই ফেসবুক ব্যবহারকারীর বিরুদ্ধে থানায় জিডি করব।”

চেয়ারম্যান খালেদ সাইফুল্লাহর ভাষ্য, “রাতে উচ্চশব্দে গানবাজনা হলে মানুষ ঘুমাতে পারে না। এজন্য রাতে গানবাজনা না করার জন্য সতর্ক করা হয়েছে। মানুষ অভিযোগ দিলে জরিমানা করা হবে। চেয়ারম্যান হিসেবে আমার ৭৫ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করার নিয়ম রয়েছে। আমার কোনো ফেসবুক আইডি নেই। কে বা কারা আমার নাম দিয়ে এটি ফেসবুকে চালাচ্ছে।”

তিনি আরও বলেন, “একজন আলেম হিসেবে মা-বোন ও স্কুল-কলেজ-মাদরাসা ছাত্রীদের পর্দার জন্য বোরকা পড়ে বাইরে বের হওয়ার পরামর্শ দিয়েছি। স্কুলে মোবাইল নিয়ে গেলে পড়ালেখায় ব্যাঘাত ঘটবে। এতে স্কুলে যেন শিক্ষার্থীরা মোবাইল নিতে না পারে সেজন্য অভিভাবকদের সতর্ক করার জন্য ওয়াজ-মাহফিলে আমি কথা বলেছি।”

কথাগুলো কোনো আইন নয়, সতর্কবার্তা ও পরামর্শ উল্লেখ করে তিনি বলেন, “রাষ্ট্রের আইনের বিরুদ্ধে আমি যেতে পারি না। আমি বলেছি এক রকম, লোকজন প্রচার করছে অন্যরকম।”

এ বিষয়ে জানতে চাইলে কমলনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সোলাইমান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “ঘটনাটি আমি শুনেছি। তদন্ত চলছে। চেয়ারম্যানের সঙ্গেও কথা বলেছি। তিনি জানিয়েছেন, ফেক আইডি থেকে এসব অপপ্রচার চালানো হচ্ছে। তিনি লিখিত অভিযোগ দেবেন বলে জানিয়েছেন।”

হাফেজ মনিরুল ইসলাম (Hafej Monirul Islam) নামের ওই ফেসবুক আইডি থেকে দেওয়া পোস্টে বলা হয়- “আলহামদুলিল্লাহ, শুরু হল ইসলামী শাসন ব্যবস্থা। কাদিরা ইউনিয়নের বিয়ের অনুষ্ঠানে কোনো গানবাজনা চলবে না। যদি চলে ৭৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে। বাজারে কোনো গানের আওয়াজ যেন না শুনি। তোমার মন চাইলে এয়ার ফোন দিয়ে শোন, আরেকজনকে শুনাইও না। যারা বক্স ভাড়া দাও, মনে রেখ এমন বাজেয়াপ্ত হবে কোনোদিন ফিরে পাবে না।”

ওই পোস্টে আরও বলা হয়, “কোনো অভিভাবক বোরকা ছাড়া মেয়েদের স্কুলে পাঠাবেন না। যারা পাঠাবেন তাদের তালিকা করব। কী ব্যবস্থা নেই, সেটা পরে দেখবেন। স্কুলে কোনো ছাত্র-ছাত্রী মোবাইল নিতে পারবে না। মোবাইল বাড়িতে চালাবে। অভিভাবক ও স্কুল কর্তৃপক্ষ এটা খেয়াল রাখবেন।”

About

Popular Links