Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ডিএমপি কমিশনার: যাকে স্বামী পরিত্যক্ত করেছিলেন, সে নাকি বড় মুক্তিযোদ্ধা

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালে কালরাতের প্রথম প্রহরে পুলিশই প্রথম প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল

আপডেট : ২৮ মার্চ ২০২২, ০১:১৪ পিএম

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াকে “মুক্তিযোদ্ধা” হিসেবে দাবির বিষয়টি নিয়ে রীতিমতো হাস্যরস করেছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, “একটি পার্টির খুব সিনিয়র এক নেতা বলা শুরু করেছেন, তাদের নেত্রী নাকি এক নম্বর মুক্তিযোদ্ধা। এর চেয়ে হাস্যকর...। যাকে তার স্বামী পরিত্যক্ত করে বলেছিলেন, পাকিস্তানের ওখানে কী করছ...। আর এখন সে নাকি বড় মুক্তিযোদ্ধা। আর না বলি।”

শনিবার (২৬ মার্চ) বিকেলে ঢাকার রাজারবাগ পুলিশ অডিটরিয়ামে পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন ডিএমপি কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে দৈনিক প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণ।

১৯৭১ সালে কালরাতের প্রথম প্রহরে পুলিশই প্রথম প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, “রাজারবাগে পুলিশ কনস্টেবল প্রথম গুলি ছুড়েছিল। কে তাকে উজ্জীবিত করেছিল? অথচ একটি দলের নেতারা বলেন, মানুষ নাকি দিগ্‌ভ্রান্ত হয়েছিল। তাহলে রাজারবাগের পুলিশ, সারা দেশের পুলিশ কীভাবে বুঝেছিল? আসলে তারা মিথ্যা কথা বলতে বলতে এমন একটা জায়গায় নিয়ে যায়, যেন সেটাই (মিথ্যা) সত্য।”

বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণই পুলিশকে উজ্জীবিত করেছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন, এরপর আনুষ্ঠানিকভাবে স্বাধীনতার ঘোষণার তেমন কোনো প্রয়োজন ছিল না।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) প্রধান এবং পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মনিরুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) বেনজীর আহমেদ। এছাড়া অতিরিক্ত আইজিপি( প্রশাসন) মইনুর রহমান চৌধুরী, র‌্যাব মহাপরিচালক (ডিজি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন, ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) কৃষ্ণপদ রায় এবং গুলশানের উপকমিশনার ও পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বক্তব্য রাখেন।

About

Popular Links