Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সন্ধ্যা নাগাদ গ্যাস সংকট কেটে যাওয়ার আভাস মন্ত্রণালয়ের

উৎপাদন ক্ষমতার বেশি গ্যাস উত্তোলন করায় গত শনিবার বিবিয়ান গ্যাসক্ষেত্রে প্রক্রিয়াকরণের সময় দুটি ইউনিটে বালি উঠে আসে, এরপর উত্তোলন বন্ধ রাখা হয়

আপডেট : ০৬ এপ্রিল ২০২২, ০১:২৩ পিএম

বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্রের গ্যাস সরবরাহের চলমান সংকট কেটে যাওয়ার আভাস দিয়েছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) এক  বিবৃতিতে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, সন্ধ্যা নাগাদ গ্যাসের সমস্যা অনেকটাই কেটে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্রে জরুরি মেরামত কাজ চলায় গত দুই দিন যাবত বিভিন্ন এলাকায় গ্যাসের চাপ কমে গিয়েছিল।

অভিজ্ঞ প্রকৌশলীদের নিরলস পরিশ্রমের কারণে এই সংকট ধীরে ধীরে কেটে যাচ্ছে বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্র থেকে প্রতিদিন ১ হাজার ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হলেও সমস্যা দেখা দেওয়ায় তা ৮০০ মিলিয়ন ঘনফুটেরও নিচে নেমে গিয়েছিল।

বর্তমানে এই গ্যাসক্ষেত্র থেকে প্রতিদিন ১ হাজার ১০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে।

বিবৃতি অনুসারে, মঙ্গলবার সন্ধ্যা নাগাদ ১ হাজার ১০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে, সংকটকালে ধৈর্য রাখার জন্য গ্রাহকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়।

উল্লেখ্য, মৌলভীবাজার জেলায় অবস্থিত দেশের সবচেয়ে বড় গ্যাস উৎপাদনক্ষেত্র  বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্রের উৎপাদনক্ষমতা ১২০ কোটি ঘনফুট।

তবে, গত শনিবারও গ্যাসক্ষেত্রটি থেকে ১২৭ কোটি ৫০ লাখ ঘনফুট গ্যাস উত্তোলন করা হলে ওইদিন মধ্যরাতের পর গ্যাস প্রক্রিয়াকরণের সময় দুটি ইউনিটে বালি উঠে আসে।

পরবর্তীতে বালির উৎস শনাক্ত করতে গত রবিবার থেকে ছয়টি কূপের উৎপাদন বন্ধ রাখা হয়।

গ্যাস উত্তোলন বন্ধ রাখায় ও ৪২ কোটি ঘনফুট উৎপাদন কমে যাওয়ায় বিদ্যুৎ, শিল্পসহ বিভিন্ন খাতে গ্যাস সরবরাহে সংকট দেখা দেয়।

বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্রে উৎপাদনে দায়িত্বরত মার্কিন বহুজাতিক কোম্পানি শেভরনের বিরুদ্ধে এর আগেও ক্ষমতার অতিরিক্ত গ্যাস উত্তোলন করা নিয়ে অভিযোগ রয়েছে। ২০০৭ সাল থেকে দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠানটি এবারও সক্ষমতার অতিরিক্ত উৎপাদন করতে গিয়ে এমন সংকট তৈরি করেছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।

About

Popular Links