Tuesday, June 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টিপ পরে ফেসবুকে ছবি দেওয়া পুরুষেরা কেন সমালোচনার শিকার?

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক জোবাইদা নাসরিন বলেন, ‘এর ফলে সমাজের পুরুষতান্ত্রিক চেহারা আবারও প্রকটভাবে দেখা দিল’

আপডেট : ০৫ এপ্রিল ২০২২, ০৯:২৩ পিএম

গত কয়েকদিন ধরে দেশে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় রাজধানীতে পুলিশ সদস্য কর্তৃক নারী শিক্ষিকাকে টিপ পরা নিয়ে হয়রানির ঘটনা। ইতোমধ্যে এই ঘটনায় নানা ভাবে প্রতিবাদ জানিয়েছেন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। 

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া অন্যান্য ইস্যুর মতো কনেস্টবল নাজমুলের এই টিপকাণ্ড নিয়েও তৈরি হয়েছে দুটি পক্ষ। এ ঘটনায় প্রতিবাদ জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে টিপ পরে ছবি প্রকাশ করায় বুলিংয়ের শিকার হয়েছেন অনেকে।

ঘটনার সূত্রপাত ২ এপ্রিল সকালে। এদিন রাজধানীর ফার্মগেট এলাকা থেকে কর্মস্থলের দিকে হেঁটে যাওয়ার সময় পুলিশের পোশাক পরা এক ব্যক্তি “টিপ পরছোস কেন” বলে কটূক্তি করেন তেজগাঁও কলেজের প্রভাষক লতা সমাদ্দারকে। প্রতিবাদ জানালে লতার পায়ের ওপর দিয়ে মোটরসাইকেল চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন ওই পুলিশ সদস্য।

এ ঘটনায় ওইদিনই শেরেবাংলা নগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তেজগাঁও কলেজের থিয়েটার অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের ওই শিক্ষিকা।

বিষয়টি নিয়ে প্রথমে সরব হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। পরে ধীরে ধীরে দেশব্যাপী ওঠে প্রতিবাদের ঝড়। বিষয়টি নিয়ে সংসদে কথা বলেন কিংবদন্তী অভিনেত্রী-সাংসদ সুবর্ণা মুস্তাফা। পরে প্রতিবাদে শামিল হন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, অভিনয়শিল্পী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলা, সাজু খাদেমসহ আরও অনেকে। তারা অনেকেই টিপ পরে ফেসবুকে ছবি দিয়ে প্রতিবাদ করেন। তবে টিপ পরে ছবি দেওয়ার কারণে পুরুষেরা সমালোচনার শিকার হচ্ছেন।

এই সমালোচনাকারীদের মধ্যে সাধারণ ফেসবুক ব্যবহারকারীরা যেমন রয়েছেন, তেমনি কবি-সাহিত্যিক থেকে শুরু পুলিশের সদস্যরা পর্যন্ত রয়েছেন। এমনকি সমালোচনামূলক স্ট্যাটাস ফেসবুকে শেয়ার করার কারণে পুলিশের একজন কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার পর্যন্ত করা হয়েছে।


আরও পড়ুন: টিপ পরে প্রতিবাদ জানানো সহ-অভিনেতাদের সমালোচনায় সিদ্দিক


টিপ পরা ছবি ফেসবুকে দিয়ে যারা সমালোচনার মুখে পড়েছেন, তাদের একজন অভিনেতা সাজু খাদেম।

ঘটনার পর সাজু তার ভেরিফায়েড ফেসবুক পাতায় একটা লাল টিপ পরে ক্যাপশনে লিখেছিলেন “লাল টিপ...লাল সূর্য...”।

এর পর আরও বেশ কয়েকজন অভিনেতাকে দেখা যায় লাল টিপ পরে ফেসবুকে ছবি দিতে। তবে সাজু খাদেমকে এই পোষ্টের কারণে অনেক কটু মন্তব্যের শিকার হতে হয়

এ বিষয়ে অভিনেতা সাজু খাদেম সংবাদ সংস্থা বিবিসি বাংলাকে বলেন, “ব্যক্তিগত মতামত যে কেউ প্রকাশ করতে পারেন, কিন্তু যদি কারও নাম উল্লেখ করে তাকে আঘাত করে মতামত দেওয়া হয় ‘সেটা অফেন্সিভ, সেটা ক্রাইম’। আমার দুঃখ লাগে যে তারা অশালীন পরিচয় দিচ্ছেন। এটাতে তাদের কোনো লাভ হচ্ছে না, বরং যারা আমাকে অশালীন মন্তব্য করছেন মানুষ তাদের সম্পর্কে জানতে পারছেন।”

এদিকে পুরুষরা যে টিপ পরে প্রতিবাদ জানিয়েছে সামাজিক মাধ্যমে সেটার তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আরেকজন পুলিশ সদস্য

সিলেট থানার পুলিশ সদস্য লিয়াকত আলী পুরুষদের টিপ পরা নিয়ে নিজের ফেসবুক পাতায় একটি পোষ্ট দেন, যেটিকে অশালীন বলে চিহ্নিত করেছেন অনেকে।এ পোস্ট দেওয়ার কারণে সোমবার রাতেই তাকে প্রত্যাহার করা হয়

প্রতিবাদকারীরাই কেন সমালোচনার মুখে?

সামাজিক বিভিন্ন ইস্যুতে নাগরিক সমাজ প্রতিবাদ করার পর প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে পাল্টা এই ধরণের আক্রমণাত্মক আচরণের নজির খুব কম।

সামাজিক মাধ্যমে এই নিয়ে যেমন প্রতিবাদ হয়েছে তেমনি রবিবার জাতীয় সংসদে কেন টিপ পরা যাবে না এমন প্রশ্ন তুলে টিপ পরার পক্ষে কথা বলেছেন সংসদ সদস্য এবং অভিনেত্রী সুর্বণা মোস্তফা

এ ঘটনায় অনেক নারীকে দেখা গেছে নিজেদের টিপ পরা ছবি ফেসবুকে পোষ্ট করতে। অনেক পুরুষও টিপ পরে প্রতিবাদ জানিয়েছেন, তবে তারা সমালোচনার মুখে পড়ছেন।

প্রত্যাহার হওয়া ওই পুলিশ সদস্যের মতো অনেকে যেমন কঠোর ও অশালীন ভাষায় পুরুষদের টিপ পরার সমালোচনা করেছেন। তেমনি কেউ কেউ যুক্তি দিয়েও পুরুষদের প্রতিবাদের এমন ধরনের বিপক্ষে মত দিচ্ছেন।

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক জোবাইদা নাসরিন বলেন, “এর ফলে সমাজের পুরুষতান্ত্রিক চেহারা আবা প্রকটভাবে দেখা দিল। পুরুষতন্ত্রটা খুব টনটনে তো, সেটা যাতে কোনভাবেই ক্ষতিগ্রস্ত না হয়, বাধাগ্রস্ত না হয় একই ভাবে সেটা যাতে কোন প্রশ্নের মুখোমুখি না হয় সেটার জন্য পুরষালী দাপুটেপনা সচল আছে। সেটা অনেকের মাথাব্যাথার কারণ। এছাড়া কে কোনো বিষয়ে প্রতিবাদ করলো সেটা সমাজে একটা বৈধতা পাওয়ার চেষ্টা আছে।”

তিনি আরও বলেন, "দেখেন এই প্রতিবাদটা যে সবার সমর্থন পেয়েছে বিষয়টা তেমন না। অনেকে বলে ঐ জায়গা তো অমুক মারা গেছে তখন কিছু বলেন নি কেন, অমুক জায়গায় অমুক হয়েছে সেটার প্রতিবাদ করেন নি কেন। এখন বুঝতে হবে প্রতিবাদ করাটা একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার। যে যেটার বিষয়ে অনুভব করবে সেটা নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখাবে।”

About

Popular Links