Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রাজশাহীতে সাড়া ফেলেছে ‘কাঁচা আমের জিলাপি’

মুখরোচক খাবার হিসেবে স্বাস্থ্যকর এই জিলাপির সুনাম এখন মানুষের মুখে মুখে

আপডেট : ১৬ মে ২০২২, ১১:৫৬ এএম

আমের জন্য প্রসিদ্ধ রাজশাহী অঞ্চলএই অঞ্চলের আমের দুইটি প্রজাতি আন্তর্জাতিক বাজারে ভৌগোলিক নির্দেশক পণ্য (জিআই) হিসেবে স্বীকৃতিও পেয়েছে। কিন্তু আন্তর্জাতিক বাজারে স্বীকৃতি পেলেও আমের বহুমূখী ব্যবহার এ অঞ্চলে কমই দেখা যায়। তবে রাজশাহীর একজন উদ্যোক্তার হাত ধরে আম দিয়ে তৈরি মিষ্টি তৈরির পর এবার “কাঁচা আমের জিলাপি” আমের নতুন পণ্য উৎপাদনে বাড়তি মাত্রা যোগ করেছে।

সুস্বাদু ও লোভনীয় কাঁচা আমের জিলাপি এনেছে রাজশাহীর মিষ্টি বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান “রসগোল্লা”। প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা আরাফাত রুবেল তার নিজস্ব চিন্তা থেকে কাঁচা আমের জিলাপি বানতে শুরু করেন।

ইফতারিতে ভিন্ন স্বাদের এই জিলাপি পেতে দূর-দূরান্ত থেকে ভিড় জমাচ্ছেন গ্রাহকরা। সরেজমিনে শনিবার (৯ এপ্রিল) বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে নগরীর উপশহর নিউমার্কেট এলাকায় গিয়ে রসগোল্লার বিক্রয় কেন্দ্রে এ জিলাপি কেনার জন্য প্রচন্ড ভিড় দেখা যায়। 

সরজমিনে দেখা যায়, বিক্রয় কেন্দ্রের সামনের অংশেই অস্থায়ী চুলা বসানো হয়েছে। সেখানেই জিলাপি ভাজছিলেন কারিগর মাসুম আলী। ইফতারের আগ পর্যন্ত তার যেন দম ফেলার সময় নেই। ভাজা শেষে রসে ডুবতে না ডুবতেই প্যাকেট বন্দি হচ্ছে জিলাপি। ক্রেতাদের চাপে রয়েছেন বিক্রয়কর্মীরাও।

মুখরোচক খাবার হিসেবে স্বাস্থ্যকর এই জিলাপির সুনাম এখন মানুষের মুখে মুখে।


আরও পড়ুন - ছোলা খাওয়ার যত উপকারিতা



কারিগর মাসুম আলী জানান, তিনি এক দশকের বেশি সময় ধরে জিলাপি তৈরি করেন। তিনি গুড় আর চিনির সংমিশ্রণেই এতোদিন জিলাপি তৈরি করেছেন। এবার কাঁচা আমের জিলাপি তৈরি করছেন। অন্যান্য উপকরণের সঙ্গে কাঁচা আম বিলিন্ডার করে যুক্ত করছেন। যোগ করছেন কাঁচা আমের ফ্লেভারও। 

রফিকুল ইসলাম নামের এক ক্রেতা বলেন, “রসগোল্লায় এর আগেও এসেছি। এখানে বিভিন্ন স্বাদের মিষ্টি পাওয়া যায়। এবার ইফতার আয়োজনেও ভিন্নতা আছে। কাঁচা আমের খবরও শুনতে পেলাম। তাই জিলাপি নিতে ছুটে এসেছি।”

রাজশাহী নগরীর ভদ্রা ও উপশহর নিউ মার্কেটে অবস্থিত রসগোল্লার দুইটি বিক্রয়কেন্দ্রেও এই কাঁচা আমের তৈরি জিলাপি পাওয়া যাচ্ছে। ২৫০ টাকা প্রতিকেজি দরে বিক্রি হচ্ছে এই বিশেষ জিলাপি।

রসগোল্লার উদ্যোক্তা আরাফাত রুবেল বলেন, “রোজার প্রথম দিন থেকেই স্বাদে অন্যন্য এই জিলাপি নিতে গ্রাহকের প্রচুর ভিড় ও সার্পোট দেখেছি।”

About

Popular Links