Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মামলার ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়ের অভিযোগে ৩ পুলিশ সদস্য প্রত্যাহার

মোটরসাইকেলের কাগজপত্র যাচাইয়ের নামে মামলার ভয় দেখিয়ে দুই বন্ধুর কাছ থেকে টাকা আদায়ের অভিযোগ গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের ৩ সদস্যের বিরুদ্ধে

আপডেট : ১৬ এপ্রিল ২০২২, ০২:১২ পিএম

মোটরসাইকেলের কাগজপত্র যাচাইয়ের নামে দুই বন্ধুকে আটক রেখে টাকা আদায়ের অভিযোগে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) বাসন থানার এএসআই শাহাদাৎ হোসেন এবং দুই কনস্টেবল মো. মিন্টু ও মো. নোমানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

শনিবার (১৬ এপ্রিল) দুপুরে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার তাকে প্রত্যাহারের আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জিএমপি'র উপ-কমিশনার (অপরাধ) জাকির হোসেন।

তিনি জানান, গাজীপুরের বাসন থানার এসআই শাহাদাৎ হোসেনসহ দুই কনেস্টবলের বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার রাতে দুই যুবককে আটক করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ ওঠায় তাদের বাসন থানা থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশ লাইনসে সংযুক্ত করা হয়েছে।

এ ছাড়া ঘটনাটি তদন্ত করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার মধ্যপাড়া ইউনিয়নের নস্করচালা গ্রামের দুই বন্ধু মনির হোসেন ও আলফাজ হোসেন বৃহস্পতিবার রাতে মোটরসাইকেলে গাজীপুর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের নাওজোড় এলাকায় পৌঁছলে ওই পুলিশ কর্ককর্তা শাহদাৎ হোসেন কনস্টেবল নোমান ও মিন্টু তাদের গতিরোধ করেন। পরে তারা তাদের মোটরসাইকেলের কাগজপত্র যাচাইয়ের নামে তাদের দেহ তল্লাশিসহ নানাভাবে হয়রানি ও মামলা দিয়ে গ্রেপ্তারের ভয়ভীতি দেখান। 

একপর্যায়ে দুই কনস্টেবল তাদের পকেটে তল্লাশি করে দুজনের কাছে থাকা ৬ হাজার ৮০০ টাকা নিয়ে নেন। পরে আরও টাকার জন্য তাদেরকে চাপ দিলে তারা বাড়ি থেকে টাকা আনার জন্য খবর পাঠায়। খবর পেয়ে দুই বন্ধুর বাবা ঘটনাস্থলে আসেন। তাদের বাবার কাছ থেকে আরও ৬ হাজার টাকাসহ মোট ১২ হাজার ৮’শ টাকা নিয়ে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

About

Popular Links