Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে বাড়ছে ঘরমুখী যাত্রীদের চাপ

ভিড়ের সুযোগ নিয়ে পাটুরিয়া থেকে গাবতলীগামী যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে

আপডেট : ০৬ মে ২০২২, ০৮:৫৬ পিএম

ঈদের ছুটি কাটিয়ে কর্মব্যস্ত জীবনে ফিরতে শুরু করেছেন ঢাকার মানুষ। শুক্রবার সকাল থেকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌপথে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। দুপুর গড়াতে ঢাকামুখী মানুষের চাপ আরও বেড়েছে। এ সুযোগে পাটুরিয়া থেকে গাবতলীগামী যাত্রীদের কাছ থেকে দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার (৬ মে) সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত সরেজমিনে দেখা যায়, সকাল থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে আসা দূরপাল্লার বাসসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহনে করে মানুষ দৌলতদিয়া ঘাটে ছুটছে। এরপর ফেরিতে নদী পার হয়ে যাত্রী ও যানবাহন পাটুরিয়া ঘাটে আসছে। লঞ্চেও যাত্রীরা নদী পার হয়ে পাটুরিয়া প্রান্তে আসছেন। এতে পাটুরিয়া ঘাট এলাকায় যাত্রীদের ঢল নামে।


আরও পড়ুন- দালালদের দৌরাত্ম্যে নাকাল দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাট


সকাল সাড়ে ১১টার দিকে দৌলতদিয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা শাপলা-শালুক নামের কে-টাইপ ফেরিটি পাটুরিয়ার তিন নম্বর ঘাটে ভিড়তে দেখা যায়। এ সময় ফেরিতে গাদাগাদি করে ৪০০-৫০০ যাত্রীকে নামতে দেখা গেছে। ফেরিতে যাত্রীদের পা ফেলারও উপায় ছিল না। এতে অনেকেই প্রচণ্ড গরমে ভোগান্তির শিকার হয়েছেন।

ফেরিতে বেশ কয়েকটি মোটরসাইকেলও ছিল। ফেরি থেকে মোটরসাইকেল আরোহীরা নামার পর সরাসরি ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করেন। তবে অন্য যাত্রীরা ফেরি থেকে নামার পর প্রায় এক কিলোমিটার হেঁটে বাসের জন্য পুরনো টার্মিনালের দিকে যান।

এছাড়া, অনেক যাত্রীদের ঝুঁকি নিয়ে পিকআপ ভ্যানে করে ঢাকায় যেতে দেখা গেছে। সেই সঙ্গে লঞ্চেও ঢাকামুখী যাত্রীদের ভিড়ও ছিল চোখে পড়ার মতো।


আরও পড়ুন- দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাটে ভোগান্তির শেষ কোথায়


ভিড় ও গরমের ভোগান্তি পেরিয়ে যাত্রীরা নবীনগর, গাজীপুর, সাভার, গাবতলী, চিটাগাং রোডসহ বিভিন্ন প্রান্তে যাওয়ার জন্য বাসে উঠতে গেলেই তাদেরকে দ্বিগুণ ভাড়া গুণতে হচ্ছে। স্বাভাবিক সময়ে যেখানে পাটুরিয়া থেকে গাবতলীগামী শেলফি পরিবহনের ভাড়া ১৫০ টাকা, সেখানে এখন ৩০০ টাকা করে ভাড়া নেওয়া হচ্ছে।

চিটাগাং রোডগামী নীলাচল পরিবহনের নিয়মিত ভাড়া ২০০ টাকা হলেও শুক্রবারে নেওয়া হচ্ছিল ৩৫০ টাকা। একই পরিবহনে নবীনগর যেতে যাত্রীদের গুণতে হচ্ছে ২০০ টাকা।  

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই সব পরিবহনের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা জানান, ঢাকা থেকে বাসগুলো খালি আসায় ক্ষতির টাকা পুষিয়ে নিতে বাড়তি টাকা নেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ নৌ-পরিবহন পরিবহন করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) আরিচা অঞ্চলের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার শাহ্‌ মোহাম্মদ খালেদ নেওয়াজ ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটে ঈদের আগে ২১টি ফেরি চলাচল করছিল। ছুটি শেষে যাত্রী ও ছোট যানবাহনের চাপ বাড়লেও পারাপারে কোনো অসুবিধা হচ্ছে না।


আরও পড়ুন- রাত নামলেই দৌলতদিয়া-পাটুরিয়ার ফেরিতে বসে জুয়ার আসর


জেলা ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক মো. মেরাজ উদ্দিন ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, ঈদ শেষে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কর্মস্থলগামী মানুষ পাটুরিয়া ঘাট হয়ে ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় ফিরছেন। শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন শেষ হওয়ায় ঘাটে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে। ঘাট এলাকায় যানজট নিরসনে ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা কাজ করছেন।

যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় নিয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি জানান, এখন পর্যন্ত এ বিষয়ে তাদের কাছে কোনো যাত্রী অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About

Popular Links