Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

টিকটক ভিডিও করার জন্য নদীতে ঝাঁপ দিয়ে কিশোরের মৃত্যু

নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের খড়খড়িয়া নদীর দীঘলডাঙ্গী সেতুতে এ ঘটনা ঘটে  

আপডেট : ২০ মে ২০২২, ০৫:২১ পিএম

নীলফামারীর সৈয়দপুরে টিকটক ভিডিও করার উদ্দেশ্যে নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মোস্তাকিন (১৬) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার (২০ মে) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের খড়খড়িয়া নদীর দীঘলডাঙ্গী সেতুতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মোস্তাকিন উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের খোর্দ্দ বোতলাগাড়ি গ্রামের মন্টু রহমান ও আহেলা খাতুন দম্পতির ছেলে। সে সৈয়দপুর শহরের ঢেলাপীরে একটি সাবান কারখানায় শ্রমিক হিসেবে কাজ করতো।

মোস্তাকিনের চাচা চাচা মো. মোখলেছুর রহমান জানান, শুক্রবার কারখানা ছুটি থাকায় কয়েকজন বন্ধুকে নিয়ে বাড়ির পাশের খড়খড়িয়া নদীর দীঘলডাঙ্গী সেতুতে যায় মোস্তাকিন। সেখানে টিকটক ভিডিও তৈরি করার জন্য সেতুর ওপর থেকে পানিতে লাফিয়ে পড়ে সে নিখোঁজ হয়। নদীতে মোস্তাকিনের লাফ দেওয়ার দৃশ্যটি তার মোবাইল ফোনে ভিডিওধারণ করছিল বন্ধুরা। অনেকক্ষণ হয়ে যাওয়ার পরও নদী থেকে না উঠে আসায় তার বন্ধুরা পরিবার ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়।

খবর পেয়ে সৈয়দপুর ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা তাকে উদ্ধারে নদীতে নামেন। এলাকার লোকজনের সহযোগিতায় প্রায় দেড় ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে ঘটনাস্থল থেকে ৫০ গজ দূরে মোস্তাকিনকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরে মোস্তাকিনকে সৈয়দপুর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

মোস্তাকিনের মৃত্যুর পর খবর পেয়ে সৈয়দপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. তারেক রহমান হাসপাতালে গিয়ে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করেন। পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে পরিবারের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ময়নাতদন্ত ছাড়াই দাফনের জন্য তাদের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে।

সৈয়দপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবুল হাসানাত খান বলেন, “এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু  মামলা হয়েছে। সামাজিক অবক্ষয় রোধে বাংলাদেশে টিকটক-লাইকির মতো অপসংস্কৃতি বন্ধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। অভিভাবক ও সমাজের সবাই এগিয়ে এলে আগামী প্রজন্মকে সঠিক পথে পরিচালিত করা সম্ভব হবে।”

About

Popular Links