Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কমতে শুরু করেছে বিপৎসীমার ওপরে থাকা সুরমা-কুশিয়ারার পানি

সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি শনিবার গড়ে ১৩ সেন্টিমিটার করে কমেছে

আপডেট : ২১ মে ২০২২, ১২:২৭ পিএম

সিলেটের প্রধান নদী সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি এখনও বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হলেও কিছুটা কমতে শুরু করেছে। কেবল কুশিয়ারা নদীর ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে পানি কিছুটা বাড়লেও বাকি সবকটি পয়েন্টে পানি কমেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো)-এর নির্বাহী প্রকৌশলী আসিফ আহমদ জানিয়েছেন, ভারতের চেরাপুঞ্জি ও আসামে বৃষ্টিপাত কম হওয়ায় সিলেটে নদ-নদীর পানি কিছুটা কমতে শুরু করেছে। তবে, সুনামগঞ্জের দিকে পানি কিছুটা বাড়ছে।

তিনি জানান, বন্যার পানির উচ্চতার চেয়ে বাঁধের উচ্চতা কম থাকায় সুরমা-কুশিয়ারার বিভিন্ন স্থানে বাঁধ ভেঙে গেছে। 

পানি উন্নয়ন বোর্ড(পাউবো),সিলেট-এর তথ্য অনুযায়ী, শনিবার (২১ মে) সকাল ৯টায় কানাইঘাট পয়েন্টে সুরমা নদীর বিপৎসীমার ৮৫ সেন্টিমিটার ও সিলেট পয়েন্টে বিপৎসীমার ২৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। শুক্রবারের চেয়ে শনিবার এ দুটি পয়েন্টে পানি প্রবাহ যথাক্রমে ১১ সেন্টিমিটার ও ৭ সেন্টিমিটার কমেছে। এছাড়া, শনিবার একই সময়ে কুশিয়ারা নদীর আমলসীদ পয়েন্টে বিপৎসীমার ১৫৬ সেন্টিমিটার, শেওলায় ৫৫ সেন্টিমিটার ও ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে ৩৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। শুক্রবারের চেয়ে শনিবার আমলসীদে ১১ সেন্টিমিটার ও শেওলায় ৩ সেন্টিমিটার পানির প্রবাহ কম ছিল।  তবে, ফেঞ্চুগঞ্জ পয়েন্টে পানি শুক্রবারের চেয়ে শনিবার ১০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। শুক্রবার এ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ২৬ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। 

পাউবো’র উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী একেএম নিলয় পাশা জানান, সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর পানি শনিবার গড়ে ১৩ সেন্টিমিটার করে কমেছে। আবহাওয়া অনুকুল থাকলে পানি কমতে থাকবে। তিনি জানান, সুরমা-কুশিয়ারার তীরবর্তী বাঁধে অনেক স্থানে ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। বিভিন্ন বাঁধ পানির নিচে থাকায় ক্ষয়-ক্ষতি নিরুপণ করা যাচ্ছে না। তবে, এ বিষয়ে তারা সার্বক্ষণিক নজরদারি রাখছেন। 

এদিকে, সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার ড. মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন ও জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান শুক্রবার বিকেলে সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার অমলশিদ এলাকায় সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর উৎসস্থলের একটি ডাইক (নদী প্রতিরক্ষা বাঁধ) পরিদর্শন করেছেন। এ সময় তারা ক্ষতিগ্রস্ত লোকজনের সাথে কথা বলেন এবং তাদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন।

About

Popular Links