Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দালালের খপ্পড়ে ক্লিনিকে, ‘ভুল চিকিৎসায়’ মা-নবজাতকের মৃত্যু

সেখানে থাকা ক্লি‌নিকের দালাল শামছুর তাদের ‘মা ক্লিনিক অ্যান্ড হাসপাতালে’ নিতে পরামর্শ দেন

আপডেট : ২৬ মে ২০২২, ০১:১৯ পিএম

টাঙ্গাইলের ভুঞাপুরে ‘‘মা ক্লি‌নিক অ্যান্ড হাসপাতালে’’ ভুল চি‌কিৎসায় নবজাতকসহ লাইলী বেগম (৩০) নামে এক প্রসূ‌তির মৃত‌্যু হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই ক্লিনিকের মালিকসহ চি‌কিৎসক ও নার্সরা পলাতক রয়েছেন।

বুধবার (২৫ মে) দিবাগত রাতে এই ঘটনা ঘটে। 

মৃত লাইলী বেগম উপজেলার গো‌বিন্দাসী ইউ‌নিয়নের খানুরবা‌ড়ি গ্রামের আতোয়ার হোসেনের স্ত্রী। 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লাইলী বেগমের প্রসব যন্ত্রণা শুরু হলে স্বজনেরা ভুঞাপুর স্বাস্থ‌্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। হাসপাতালের কর্মরত চি‌কিৎসক রো‌গীকে টাঙ্গ‌াইলে নিয়ে যেতে বলেন। পরে সেখানে থাকা ক্লি‌নিকের দালাল শামছুর তাদের ‘‘মা ক্লিনিক অ্যান্ড হাসপাতালে’’ নিতে পরামর্শ দেন। দালালের পরামর্শ মোতাবেক ওই ক্লিনিকে নিয়ে গেলে রোগীকে অপারেশন থিয়েটারে নেওয়া হয়।

আরও জানা যায়, পরে ওই ক্লি‌নিকের সার্জা‌রি চি‌কিৎসক ও ভুঞাপুর স্বাস্থ‌্য কমপ্লেক্সের আবা‌সিক মেডিকেল অফিসার এনামুল হক সোহেল ও অ্যানেস্থেশিয়ার চিকিৎসক ডা. আল মামুন অস্ত্রোপচার শুরু করেন। একপর্যায়ে রোগী  অপারেশন টেবিলেই মারা যান। পরে মরদেহ স্বজনদের না জানিয়ে টাঙ্গাইলে পাঠিয়ে দেয়ার চেষ্টা করেন। বুঝতে পেরে স্বজনেরা বাধা দেন।

রোগীর স্বজনরা জানান, প্রসব যন্ত্রণা শুরু হলে সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে দালালের খপ্পড়ে পড়ে ক্লিনিকে নেওয়া হয়। সেখানে দুই ঘণ্টা ধরে অপারেশন রুমে রোগীকে রাখা হয়। সেখানেই তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনার পরে ক্লিনিকের মালিকসহ চি‌কিৎসক ও নার্সরা পালিয়ে গেছেন। 

ভুঞাপুর স্বাস্থ‌্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. আল মামুন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘‘ওই ক্লিনিকে নেওয়ার পর রোগীর উচ্চ রক্তচাপ দেখা দেয়। অপারেশনের আগেই রোগী বমি করেন, এর পরপরেই তিনি মারা যান।’’

এ ব্যাপারে ভুঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ ফ‌রিদুল ইসলাম ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, ‘‘খবর পেয়ে ক্লিনিকে পু‌লিশ পাঠানো হয়েছে। ক্লিনিকের মালিক, চিকিৎসক ও নার্স পলাতক রয়েছেন। আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।’’

About

Popular Links