Wednesday, June 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

২৬ মাস পর খুলনা থেকে কলকাতা যাচ্ছে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে ২৬ মাস বন্ধ থাকার পর কলকাতা-খুলনা রুটে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’ ট্রেন পুনরায় চলাচল শুরু করেছে

আপডেট : ২৯ মে ২০২২, ০২:০০ পিএম

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ২৬ মাস বন্ধ থাকার পর কলকাতা-খুলনা রুটে “বন্ধন এক্সপ্রেস” ট্রেন পুনরায় চলাচল শুরু করেছে। এর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার।

রবিবার (২৯ মে) সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে কলকাতার কাঁচপুর থেকে বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশনে এসে পৌঁছায় বন্ধন এক্সপ্রেস।

এ সময় বাংলাদেশ রেলওয়ের যুগ্ম মহাপরিচালক সালাউদ্দিন, ঢাকা বিভাগীয় রেলওয়ে কর্মকর্তা শফিকুর রহমান ও স্টেশন মাস্টার লিটন চন্দ্র উপস্থিত ছিলেন।

ট্রেনটি চালু হওয়ায় স্বস্তি জানিয়ে কয়েকজন যাত্রী বলেন, “যাত্রীদের প্রচণ্ড ভিড় থাকে বেনাপোলে। এখান থেকে গেলে ভোগান্তি কম হয়। খরচ একটু বেশি হলেও সুবিধা হয়।”


খুলনা রেলওয়ের স্টেশন মাস্টার মানিক চন্দ্র সরকার বলেন, “প্রথম দিনে টিকিট বিক্রি একটু কম। ইতোমধ্যেই লোকজন খবর পেয়ে গেছে। আশা করছি কয়েক দিনের মধ্যে টিকিট বিক্রি বেড়ে যাবে।”


আরও পড়ুন- রবিবার থেকে কলকাতা-খুলনা রুটে চলবে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’


বেনাপোল স্টেশন মাস্টার মো. সাইদুজ্জামান জানান, বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের ভাড়া ভ্রমণ করসহ দেড় হাজার ও দুই হাজার টাকা।

বেনাপোল রেলওয়ে স্টেশন সূত্রে জানা যায়, ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কলকাতা-খুলনার মধ্যে ৪৫৬ আসনের “বন্ধন এক্সপ্রেস” নামের আন্তর্জাতিক ট্রেনটি চলাচল শুরু করে। ট্রেনটির ৪৫৬ আসনের মধ্যে ৩১২টি এসি চেয়ার ও ১৪৪টি প্রথম শ্রেণির আসন রয়েছে।

কলকাতা–খুলনার মধ্যে দূরত্ব ১৭২ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশে পড়েছে ৯৫ কিলোমিটার ও ভারতে পড়েছে ৭৭ কিলোমিটার। শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত এ ট্রেনে কেবিনে সিট ভাড়া দেড় হাজার ও চেয়ার কোচ ভাড়া এক হাজার টাকা। সঙ্গে যোগ হয় ৫০০ টাকার ভ্রমণ কর।


বেনাপোলে যাত্রীর পাসপোর্ট, ভিসাসহ ইমিগ্রেশনের যাবতীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করা হয়। এরপর যাত্রীরা সরাসরি খুলনা ও কলকাতার মধ্যে যাতায়াত করতে পারেন। বাংলাদেশ থেকে বৃহস্পতিবার ও রবিবার দুই দিন এই ট্রেন ছেড়ে যায়। ভারত থেকে আসে দুই দিন। সপ্তাহের প্রতি বৃহস্পতিবার সকালে ট্রেনটি কলকাতা থেকে ছেড়ে আবার বিকালে খুলনা থেকে কলকাতার উদ্দেশ্যে ফিরে যায়।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃদেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়। সংক্রমণ কমায় দেশের ভেতরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও এতদিন আন্তঃদেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধই ছিল।

About

Popular Links