Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

১ জুন থেকে চালু হচ্ছে ‘মিতালী এক্সপ্রেস’

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দুই বছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আবারও বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে আন্তঃদেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে

আপডেট : ৩০ মে ২০২২, ০৫:০৭ পিএম

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে দুই বছরেরও বেশি সময় বন্ধ থাকার পর আবারও বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে আন্তঃদেশীয় যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। সে ধারাবাহিকতায় তৃতীয় ভারত-বাংলাদেশ ট্রেন সার্ভিস “মিতালি এক্সপ্রেস”-এর কার্যক্রম শুরু হতে যাচ্ছে।

বুধবার (১ জুন) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে ঢাকা সেনানিবাস স্টেশন পর্যন্ত এই ট্রেনের চলাচল শুরু হবে।

সরকারি সূত্রে জানা যায়, বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন এবং তার ভারতের সমকক্ষ অশ্বিনী বৈষ্ণব যৌথভাবে ভার্চুয়াল ফরম্যাটে ভারতের রেল মন্ত্রণালয়ের সদর দপ্তর রেল ভবন থেকে “মিতালি এক্সপ্রেস”-এর যাত্রার উদ্বোধন করবেন।

বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী এক সপ্তাহের সরকারি সফরে ২৮ মে ভারতে গিয়েছেন। ট্রেন উদ্বোধন করা ছাড়াও, মন্ত্রী লখনৌ, বারানসী, রায়বেরেলি এবং তুঘলকাবাদ সফর করবেন এবং সেখানকার কিছু রেল কোচ কারখানা পরিদর্শন করবেন।

এদিকে, ভারতের রেল প্রতিমন্ত্রী দর্শনা জারদোশ “মিতালি এক্সপ্রেস” উদ্বোধনের আগে রবিবার পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি রেল স্টেশন পরিদর্শন করেছেন। তিনি স্টেশনের কার্যক্রম, জনসেবা এবং স্টেশনে পরিচ্ছন্নতা রক্ষণাবেক্ষণ পর্যালোচনা করেন।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে এক বার্তায় তিনি বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের উত্তর-পূর্ব সীমন্ত রেলওয়ের নিউ জলপাইগুড়ি রেলওয়ের স্টেশন পরিদর্শন করেছি। স্টেশনের কার্যক্রম, জনসেবা এবং রেলওয়ে স্টেশনে পরিচ্ছন্নতা রক্ষণাবেক্ষণ পর্যালোচনা করেছি।”


আরও পড়ুন- ২৬ মাস পর খুলনা থেকে কলকাতা যাচ্ছে ‘বন্ধন এক্সপ্রেস’


গণমাধ্যমের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মন্ত্রী বলেন যে, “মিতালি এক্সপ্রেস” দ্বিপক্ষীয় সংযোগের পাশাপাশি পর্যটন সম্ভাবনাকে জোরদার করতে সহায়তা করবে এবং আগামী কয়েক দিনের মধ্যে লোকদের স্টেশনের চারপাশে চলাচল করতে সহায়তা করার জন্য এলাকায় একটি হাসপাতাল, শপিং মল এবং কম দামের হোটেল তৈরি করা হবে।

নিউ জলপাইগুড়ি থেকে ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশনের মধ্যে ৫১৩ কিলোমিটার যেতে ট্রেনটির ৯ ঘণ্টা সময় লাগবে। ট্রেনটি একটি ডিজেল ইঞ্জিন দ্বারা পরিচালিত হবে এবং এতে ৪টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিন কোচ এবং ৪টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত চেয়ার কার থাকবে।

ভারতের উত্তর রেলওয়ের প্রধান জনসংযোগ কর্মকর্তা (সিপিআরও) গণমাধ্যমকে জানান, “মিতালি এক্সপ্রেস” উত্তর পশ্চিমবঙ্গের নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে সকাল পৌনে ১২টায় ছেড়ে যাবে এবং বাংলাদেশ সময় রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকা পৌঁছাবে। এটি ভারতের দিকের শেষ স্টেশন হলদিবাড়িতে এবং বাংলাদেশের দিকে প্রথম স্টেশন চিলাহাটিতে চালক পরিবর্তনের জন্য শুধুমাত্র ১০ মিনিটের জন্য থামবে। এর বাইরে এটির আর কোনো বিরতি নেই।

সিপিআরও আরও জানান, ফিরতি যাত্রার সময় “মিতালি এক্সপ্রেস” সপ্তাহে দুই দিন সোমবার ও বৃহস্পতিবার, ঢাকা সেনানিবাস থেকে নিউ জলপাইগুড়ি চলবে। এটি ঢাকা সেনানিবাস থেকে রাত ৯টা ৫০ মিনিটে ছাড়বে।

ভারতের রেল সূত্রে জানা যায়, ট্রেনটি বাংলাদেশ সময় ০৫টা ৪৫ মিনিটে চিলাহাটি (বাংলাদেশ) এ পৌঁছবে। এটি সোয়া ৬টায় চিলাহাটি থেকে ছাড়বে। ট্রেনটি ভারতীয় সময় ৬টায় হলদিবাড়ি (ভারত) পৌঁছাবে এবং হলদিবাড়ি থেকে ৬টা ৫ মিনিটে ছাড়বে এবং ভারতীয় সময় সোয়া ৭টায় নিউ জলপাইগুড়ি পৌঁছবে।

তারা আরও জানান, এই যাত্রার জন্য নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন এবং কলকাতা রেলওয়ে স্টেশনের বিদেশী যাত্রী সংরক্ষণ ব্যবস্থা কাউন্টারে ট্রেনের টিকিট পাওয়া যাবে।

করোনাভাইরাস মহামারির মধ্যে ২০২০ সালের ১৫ মার্চ থেকে বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃদেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়। সংক্রমণ কমায় দেশের ভেতরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল শুরু হলেও এতদিন আন্তঃদেশীয় ট্রেন চলাচল বন্ধই ছিল। তবে সম্প্রতি “মৈত্রী এক্সপ্রেস” ও “বন্ধন এক্সপ্রেস” নামে অপর দুটি ইন্দো-বাংলাদেশ যাত্রীবাহী ট্রেন পুনরায় তাদের কার্যক্রম শুরু করেছে। ২০০৮ সালে যাত্রা শুরু করা “মৈত্রী এক্সপ্রেস” ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ ভারত ভাগ করার পর থেকে দুটি দেশের মধ্যে চালানো প্রথম ট্রেন। ২০১৭ সালের ১৬ নভেম্বর কলকাতা-খুলনার মধ্যে ৪৫৬ আসনের “বন্ধন এক্সপ্রেস” ট্রেন চলাচল শুরু করে।

About

Popular Links