Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দেশের যেসব এলাকায় নতুন করে বন্যা হতে পারে

পাশাপাশি সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনাসহ  লালমনিরহাট, নীলফামারী, রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, জামালপুরের বন্যা পরিস্থিতিরও অবনতি হতে পারে

আপডেট : ১৯ জুন ২০২২, ০৫:২৮ পিএম

উজানে ভারি বৃষ্টির কারণে দেশের প্রায় সব প্রধান নদ-নদীর পানি বাড়ছে। এর মধ্যে ৯টি নদীর ১৮ পয়েন্টে পানি বিপৎসীমার ওপরে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে টাঙ্গাইল, মুন্সিগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলার নিম্নাঞ্চল নতুন করে বন্যায় প্লাবিত হতে পারে।

সেই সঙ্গে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা,  লালমনিরহাট, নীলফামারী, রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর জেলার বন্যা পরিস্থিতিরও অবনতি হতে পারে বলেও জানানো হয়েছে।

রবিবার (১৯ জুন) এক পূর্বাভাসে  এ কথা জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র।

আবহাওয়া সংস্থাগুলোর গাণিতিক মডেলভিত্তিক পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গের এলাকাগুলোতে মাঝারি থেকে ভারি এবং কোথাও কোথাও অতিভারি বৃষ্টিপাতের শঙ্কা রয়েছে। ফলে আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, গঙ্গা-পদ্মা, সুরমা, কুশিয়ারা, তিস্তা, ধরলা ও দুধকুমারসহ সব প্রধান নদ-নদীগুলোর পানিবৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে।

এ সময়ে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোনা জেলার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে। একই সময়ে তিস্তা নদীর পানি সমতল বিপৎসীমার কাছাকাছি অথবা ওপরে অবস্থান করতে পারে। 

এদিকে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় লালমনিরহাট, নীলফামারী, রংপুর, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, বগুড়া, সিরাজগঞ্জ, জামালপুর জেলার বন্যা পরিস্থিতির অবনতি হতে পারে বলে পূর্বাভাসে বলা হয়েছে। এ সময়ে টাঙ্গাইল, মুন্সিগঞ্জ ও শরীয়তপুর জেলার নিম্নাঞ্চলের বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হতে পারে।

ব্রহ্মপুত্র, যমুনা, ধরলা, তিস্তা, দুধকুমার, সুরমা, কুশিয়ারা, ঘাঘট এবং সোমেশ্বরী নদীর ১৮ পয়েন্টের পানি বিপৎসীমার ওপরে থাকলেও  সারিগোয়াইন, খোয়াই, পুরতন সুরমা ও কংশ নদীর পানি এখন বিপৎসীমার নিচে নেমেছে।

বিপৎসীমার ওপরে থাকা থাকা নদীগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বাজে অবস্থায় রয়েছে কুশিয়ারার অমলশীদ এবং সোমেশ্বরী নদীর কলমাকান্দা পয়েন্টের পানি। এ দুটি পয়েন্টের পানি যথাক্রমে বিপৎসীমার ১৬০ এবং ১১২ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে। 

বৃষ্টিপাতের বিষয়ে বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানায়, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটের জাফলংয়ে সর্বোচ্চ ৩১৭ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।  এছাড়া, সিলেট পয়েন্টে ৩১৫, সিলেটের লালাখালে ৩১১, মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণবাগ পয়েন্টে ২০৫, লাটুতে ১৭৫, কানাইঘাটে ১১০, জকিগঞ্জে ১৯৩, শেওলায় ১১৫ এবং সুনামগঞ্জে ১২৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

About

Popular Links