Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফেরির দিন শেষ, এবার পদ্মা পাড়ি দিতে মোটরসাইকেলের ভাড়া খাটা শুরু!

ভাড়ার মোটরসাইকেলে যাত্রীপ্রতি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ২০০ টাকা। অধিকাংশ যাত্রীর নেই হেলমেট

আপডেট : ২৬ জুন ২০২২, ০৩:৪৯ পিএম

যানবাহন চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে পদ্মা সেতু। ভোর থেকেই সেতু পারাপারের জন্য টোল প্লাজায় অপেক্ষায় ছিলেন অসংখ্য মানুষ। সকাল ৬টায় মাওয়া প্রান্তে প্রায় এক হাজার মোটরসাইকেলের জটলা দেখা যায়। অধিকাংশই এসেছেন পদ্মা সেতু ভ্রমণে।

রবিবার (২৬ জুন) সকাল ১০তার পর থেকে সেই জটলা আরও বেড়েছে। তবে বেলা ১১টার দিকে এই ভিড় কিছুটা কমেছে। সংবাদমাধ্যম সমকালের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়, শত শত উৎসাহী মানুষ এসেছেন পদ্মা সেতু ঘুরে দেখতে। আর এসব মানুষকে নিয়ে সেতু পারাপারে চলছে “রমরমা ব্যবসা”। ভাড়ার মোটরসাইকেলে দুইজন করে যাত্রী বহন করতে দেখা গেছে। আর যাত্রীপ্রতি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ২০০ টাকা। অধিকাংশ যাত্রীর নেই হেলমেট। এতে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

মাদারীপুরের কালনার মোটরসাইকেল আরোহী মো. রিপন মিয়া সংবাদমাধ্যম সমকালকে বলেন, দুইজন যাত্রী নিয়ে সেতু পার হই। জনপ্রতি ২০০ টাকা করে ভারা নেই। সেতুর ১০০ টাকা টোল বাদ দিলে একেকটি ট্রিপে লাভ থাকছে ৩০০ টাকা। আর সেতু পার হতে সময় লাগে ১০ মিনিট।

তিনি আরও বলেন, “মোটরসাইকেল চালানো পেশা না। নতুন কিনেছি। সেতুতে ভাড়া টেনে মোটরসাইকেলের দামের কিছু টাকা তুলে নিচ্ছি।”

কেউ একা সেতু পার হতে চাইলে তাকে দুইজনের ভাড়া বাবদ ৪০০ টাকা দিয়ে সেতু পার হতে হচ্ছে বলেও জানান এই মোটরসাইকেল আরোহী।

সেতু পারাপারে বাণিজ্যিকভাবে যাত্রী পরিবহনে ব্যাবহার হচ্ছে মাইক্রোবাসও। ১১ আসনের একটি মাইক্রোবাসে যাত্রী বহন করা হচ্ছে ১৫ থেকে ১৭ জন। প্রতি জনের ভাড়া ২০০ টাকা করে। ১,৩০০ টাকা টোল দিয়ে একেক ট্রিপে লাভ থাকছে প্রায় দুই হাজার টাকা।

মো. রনি নামের এক মাইক্রোবাসচালক বলেন, “শনিবার ৯টার দিকে জাজিরা থেকে একটি ট্রিপ নিয়ে এসেছিলাম। এখন মাওয়া থেকে আরেক দফা যাত্রী নিয়ে সেতু পাড় হচ্ছি।”

পিছিয়ে নেই যাত্রীবাহী বাসও। রুট পারমিট আছে মাওয়া পর্যন্ত, কিন্তু যাত্রী নিয়ে ছুটছে ভাঙ্গা পর্যন্ত। মাওয়া প্রান্ত থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত ১০০ টাকা ভারা হওয়ার কথা থাকলেও তা নেওয়া হচ্ছে ২০০ টাকা করে।

এ বিষয়ে সংবাদমাধ্যম সমকালকে আপন পরিবহনের এক হেল্পার বলেন, “সখের দাম ২০০ ট্যাকা।”

About

Popular Links