Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভোলায় শিশু নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল, কারাগারে দাদি

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে

আপডেট : ২৭ জুন ২০২২, ১১:৫২ পিএম

ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় মোবাইল ফোন চুরির ঘটনায় সাত বছরের শিশুকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। 

এ ঘটনায় শিশু নির্যাতনের দায়ে দাদিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে সোমবার (২৭ জুন) কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, রবিবার তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নির্যাতিত শিশুর বাবা মো. হারুন হাওলাদার এবং মা মনোয়ারা বেগম। প্রায় ছয় বছর আগে তানিশার বাবা মায়ের বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। পরে বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করে চট্টগ্রামে থাকেন। মা মনোয়ারা বেগমেরও অন্যত্র বিয়ে হয়ে যায়। সেই থেকে শিশুটি নানার বাড়িতে বসবাস করত।

সম্প্রতি শিশুটিকেকে তার দাদার বাড়িতে আনা হয়। গত ২৩ জুন সকালে উপজেলার দেউলা ইউনিয়নের বড়পাতা গ্রামের হাওলাদার বাড়িতে একটি মোবাইল ফোন হারায়। ওই ফোন শিশুটি চুরি করেছে এমন অভিযোগ তুলে দাদি সোনিয়া বেগম তাকে নির্যাতন করেন। স্থানীয় এক কিশোর মোবাইল ফোনে নির্যাতনের একটি ভিডিও করে। পরে  সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করলে ভিডিওটি ভাইরাল হয়।

৩১ সেকেন্ডের ওই ভিডিওতে দেখা যায়, দাদি সোনিয়া বেগম শিশুটির চুলের মুঠি ধরে পুকুর পাড়ের কাঁচা মাটির রাস্তা দিয়ে টেনে বাড়ির দিকে নিয়ে যাচ্ছেন। মাঝে মাঝে ওপরে তুলে আছাড় দিচ্ছেন। শিশুটি দাদির হাত থেকে বাঁচার চেষ্টা করছে আর মা মা বলে কান্না করছে। বাড়িতে নিয়ে লোহার প্লাস দিয়ে শিশুটির ডান হাতের আঙ্গুলের নখ টেনে উঠিয়ে ফেলা হয়। এরপর তাকে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখা হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।

About

Popular Links