Friday, May 31, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইভ্যালির বিরুদ্ধে ১ বছরে অভিযোগ ৫,৮১৫, নিষ্পত্তি ৩৫৩

এখন পর্যন্ত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির বিরুদ্ধে মোট ১০ হাজার ৭৪৭টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে

আপডেট : ১৯ জুলাই ২০২২, ০৭:৪৯ পিএম

গত এক বছরে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির বিরুদ্ধে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরে অভিযোগ এসেছে ৫,৮১৫টি। এই সময়ের মধ্যে অভিযোগ নিষ্পত্তি হয়েছে মাত্র ৩৫৩টি।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি স্টার।

অধিদপ্তরের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, এখন পর্যন্ত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির বিরুদ্ধে মোট ১০ হাজার ৭৪৭টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। জুন মাস পর্যন্ত নিষ্পত্তি হয়েছে মোট ৪ হাজার ৪৯৫টি অভিযোগের। নিষ্পত্তির হার ৪১%। এক বছর আগে এই হার ছিল ৮৪%।

ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের বরাত দিয়ে ডেইলি স্টারের প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রাহক ও ব্যবসায়ীদের কাছে ইভ্যালির দায় বিপুল। ইভ্যালির সম্পদের পরিমাণ সীমিত। তাই গ্রাহকদের অর্থ ফেরত পাওয়ার সম্ভাবনা কম।

ইভ্যালির বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটির নামে বিভিন্ন পেমেন্ট গেটওয়ের এসক্রো অ্যাকাউন্টে ২৫ কোটি টাকা আটকে আছে। এছাড়াও ইভ্যালির দুটি গুদামে মোট ২৫ কোটি টাকার পণ্য আছে।

কোম্পানিটির বিরুদ্ধে করা দাবির তুলনায় এই সম্পদের পরিমাণ খুবই সামান্য বলে জানিয়েছেন বর্তমান ইভ্যলির পরিচালনা পর্ষদের প্রধান বিচারপতি এ এইচ এম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক।

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এইচ এম শফিকুজ্জামান ডেইলি স্টারকে বলেন, “অনেক ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের অফিস বন্ধ হয়ে গেছে। এসব প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাদের কোনো খোঁজ নেই। ইভ্যালির বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সংখ্যক অভিযোগ থাকলেও, টাকা ফেরত দেওয়ার কেউ নেই।”

আদালত কর্তৃক নিযুক্ত ইভ্যালির পরিচালনা পর্ষদ গ্রাহকের অভিযোগ নিয়ে কাজ করে না বলে জানিয়েছেন বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহবুব কবির মিলন। তিনি বলেন, “আদালত প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা বা বিলুপ্ত করতে একটি অডিটের মাধ্যমে মতামত দিতে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন। এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সঙ্গে আমাদের কোনো যোগাযোগ নেই।”

About

Popular Links