Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাতক্ষীরা পৌরসভার সিইও নাজিম উদ্দিনের দুর্নীতি ও অনিয়মের তদন্ত শুরু

২০২০ সালে কুড়িগ্রামে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আলোচনায় আসেন সিনিয়র সহকারী সচিব (তৎকালীন আরডিসি) নাজিম উদ্দিন

আপডেট : ২৪ জুলাই ২০২২, ০৮:৫৩ পিএম

২০২০ সালে কুড়িগ্রামে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আলোচনায় আসেন সিনিয়র সহকারী সচিব (তৎকালীন আরডিসি) নাজিম উদ্দিন। পরে সাতক্ষীরা পৌরসভার প্রধান নির্বাহী (সিইও) হিসেবে পদায়ন পান তিনি। পদায়নের পর থেকে তার বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলেন স্থানীয়রা।

সেই অভিযোগের ভিত্তিতে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনে গত ২৬ এপ্রিল “অবাধ্য হলে ফায়ারের হুমকি দেন নাজিম উদ্দিন” শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

ওই প্রতিবেদনের জেরে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। রবিবার (২৪ জুলাই) বেলা ১১টায় সাতক্ষীরা সার্কিট হাউসে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের খুলনা বিভাগীয় পরিচালক গিয়াসউদ্দীন সেই কমিটির তদন্ত কাজ শুরু করেন।

এ বিষয়ে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সাতক্ষীরার উপপরিচালক মাশরুবা ফেরদৌস বলেন, “মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আদেশে সাতক্ষীরা পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়েছে। স্থানীয় সরকার শাখার খুলনার বিভাগীয় পরিচালক গিয়াসউদ্দীন বিষয়টি তদন্ত করছেন। প্রধান নির্বাহী নাজিম উদ্দিন ও সাক্ষী বিরাজ হোসেনসহ ১১ জনের সঙ্গে কথা বলে বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।”


আরও পড়ুন: সাংবাদিক নির্যাতন, ক্রসফায়ার বিতর্কে আলোচিত সেই নাজিমের বিরুদ্ধে পুনরায় তদন্ত শুরু


তিনি জানান, সাক্ষ্য দেওয়ার জন্য পৌরসভার মাস্টাররোল কর্মচারী বিরাজ হোসেন, রুবেল হোসেন, রেজা হোসেন, পৌরসভার প্রধান সহকারী প্রশান্ত কুমার ব্যানার্জী, উচ্চমান সহকারী তাহমিনা খাতুন, অফিস সহায়ক কামাল হোসেন, পাইপলাইন মেকানিক আনারুল ইসলাম, পাম্পচালক আরিফুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান ও আরিফ আহমেদ খানকে চিঠি দেওয়া হয়েছে।


আরও পড়ুন: এখনও ‘ক্রসফায়ারে’র হুমকি দেন সাংবাদিক পেটানো আরডিসি নাজিম উদ্দিন


প্রসঙ্গত, ঘুষ বাণিজ্য, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ, ক্রসফায়ারের হুমকি, নির্বাহী আদালত বসিয়ে জেল-জরিমানার হুমকি, চাকরি থেকে অব্যাহতির হুমকি, সরকারি গাড়ি ব্যবহার করে মাদক বহন ও সেবন, নিয়ম বহির্ভূতভাবে ছুটি কাটানোসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে সাতক্ষীরা পৌরসভার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে। এসব অভিযোগ পৌর মেয়র তাশকিন আহমেদ চিশতি লিখিতভাবে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ে পাঠান। পাশাপাশি অনুলিপি পাঠান জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে। এছাড়া নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ নাজিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে তদন্তের নির্দেশ দেয়।

আরও পড়ুন

About

Popular Links