Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গাজীপুরে চলন্ত বাসে নারীকে গণধর্ষণ, ৫ অভিযুক্তের জবানবন্দি

জেলা ও গোয়েন্দা পুলিশ যৌথভাবে সড়কের সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ ও প্রযুক্তি ব্যবহার করে অভিযুক্তদের ১২ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়

আপডেট : ০৭ আগস্ট ২০২২, ০৯:২৭ পিএম

গাজীপুরের শ্রীপুরে তাকওয়া পরিবহনের যাত্রীবাহী বাসে এক নারীকে গণধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্তরা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন গাজীপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) এ এস এম শফিউল্লাহ।

রবিবার (৭ আগস্ট) বিকেল সাড়ে ৪টায় গাজীপুরের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পাঁচ অভিযুক্ত ও আরেকটি আদালতে নির্যাতিত নারী জবানবন্দি দেন।

অভিযুক্ত রাকিব মোল্লা (২০) এবং সুমন হাসান (২২) জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-৩ ইশরাত জেনিফার জেরিনের আদালত, সুমন খান (২০) জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-৪ জোবায়দা নাসরিন বর্ণার আদালত এবং সজীব (২১) ও শাহীন মিয়া (১৯) সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-২ ইখলাস উদ্দিনের আদালতে ঘটনার স্বীকারোক্তিমূলক দেয়।

ভুক্তভোগী নারী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট-৫ আলীফা বেগমের আদালতে জবানবন্দি দেন।

জবানবন্দি  ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, অভিযুক্ত শাহীন ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার বিলডোরা এলাকার বাসিন্দা। বিলডোরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাবজল হোসেন খান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “শাহীন প্রায় পাঁচ বছর ধরে গাজীপুরে বিভিন্ন পরিবহনে কাজ করছে বলে আমরা শুনেছি। তার বাবা একজন দিনমজুর। তার পড়াশোনা বেশি নেই। তবে সেখানে সে সত্যিকার অর্থে কী করে তা নিশ্চিত নই।”


আরও পড়ুন-  গাজীপুরে চলন্ত বাসে নারীকে গণধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৬


খুলনা জেলার রূপসা থানার আইচগাতী ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জুলফিকার আলী টিপু ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “অভিযুক্ত সুমন হাসান খুলনা জেলার রূপসা থানার আইচগাতী ইউনিয়নের বাসিন্দা। তারা ১২ বছর আগে অন্য একটি এলাকা থেকে খান মোহাম্মদপুর এলাকায় এসে বাড়ি করে। সুমন হাসান এসএসসি পাশ করতে পারেনি। তবে এলাকাবাসীর কাছে শুনেছি সে নারায়ণগঞ্জে থাকে।”

গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রভাষক ডা. এ এন এম আল মামুন বলেন, “প্রাথমিকভাবে নারীর সঙ্গে ধস্তাধস্তি আলামত পাওয়া গেছে। ডিএনএ রিপোর্ট পাওয়ার পর ফরেনসিক প্রতিবেদন সম্পন্ন হবে।”

নওগাঁ থেকে ওই নারী তার স্বামীকে নিয়ে একতা পরিবহনের একটি বাসে করে শনিবার ভোর তিনটার দিকে গাজীপুরের বোগড়া বাইপাস এলাকায় আসেন। তারা সেখান থেকে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার মাস্টারবাড়ি এলাকায় যাওয়ার জন্য যাত্রীবাহী পরিবহনের খোঁজ করছিলেন। এমন সময় তাকওয়া পরিবহন নামের একটি বাসের চালক, সহকারী ও সুপারভাইজার মাস্টারবাড়ি যাওয়ার কথা বলে তাদের গাড়িতে তোলে। বাসটি ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের চন্দনা চৌরাস্তায় গিয়ে ওই নারী ও তার স্বামীকে রেখে সব যাত্রীকে নামিয়ে দেয়।

মাওনা চৌরাস্তা পৌঁছার আগেই ওই নারীর স্বামীকে বাস থেকে মারধর করে নামিয়ে দেওয়া হয়। ওই ব্যক্তি ঘটনাটি শ্রীপুর থানা পুলিশকে জানালে তারা খোঁজ নিতে থাকে। পরে বাসটি মাওনা উড়াল সেতুর নিচ দিয়ে ইউ টার্ন নিয়ে আবার গাজীপুরের দিকে রওনা দেয়। উল্লিখিত সময়ের মধ্যে গাজীপুরের রাজেন্দ্রপুরে আসে বাসটি। এর মধ্যে বাসে থাকা পাঁচজন তাকে ধর্ষণ করে। পরে তাকে রাজেন্দ্রপুরের কোনো এক জায়গায় ভুক্তভোগীকে নামিয়ে দিয়ে অভিযুক্তরা গাজীপুরের দিকে চলে যায়।

এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে শ্রীপুর থানায় মামলা করেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

About

Popular Links