Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কলেজছাত্রকে বিয়ে করা শিক্ষিকার আত্মহত্যা: স্বামী মামুন আদালতে

রবিবার সকালে খায়রুন নাহারের মরদেহ উদ্ধারের পর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামী মামুন হোসাইনকে আটক করে পুলিশ 

আপডেট : ১৫ আগস্ট ২০২২, ০৫:৫১ পিএম

নাটোরের গুরুদাসপুরে কলেজছাত্রকে বিয়ে করা শিক্ষিকা খায়রুন নাহারের (৪০) আত্মহত্যার ঘটনায় আটক তার স্বামী মামুন হোসাইনকে (২২) আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। 

সোমবার (১৫ আগস্ট) সন্ধ্যায় মামুনের বিষয়ে আদালতে আদেশ জারির কথা রয়েছে।

সদর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ ও কোর্ট ইন্সপেক্টর নাজমুল হকের বরাত দিয়ে করা এক প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউন।

আবুল কালাম আজাদ বলেন, রবিবার সকালে খায়রুন নাহারের মরদেহ উদ্ধারের পর মামুনকে আটক করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সোমবার দুপুরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।

আদালত পরিদর্শক নাজমুল হক জানান, এ বিষয়ে বিকেল ৫টার দিকে আদালতের আদেশ দেওয়ার কথা রয়েছে।

রবিবার সকাল ৭টায় নাটোর শহরের বলারিপাড়া এলাকায় ভাড়া বাসা থেকে শিক্ষিকা খায়রুন নাহারের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তার স্বামী কলেজছাত্র মামুন হোসাইনকে আটক করে পুলিশ।

খায়রুন নাহারের পরিবারের সদস্যরা জানান, ২২ বছর বয়সী কলেজছাত্র মামুনকে বিয়ে করে সে মানসিক চাপে ছিল। এ ঘটনায় পরে তার স্বামী মামুনকে আটক করে পুলিশ।

সহকারী অধ্যাপক মোছা. খাইরুন নাহারের প্রথম বিয়ে হয় রাজশাহীর বাঘায়। পারিবারিক কলহে সংসার বেশি দিন টেকেনি তার। তিনি এক সন্তানের জননী।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ২০২১ সালের ২৪ জুন তার পরিচয় হয় মামুন হোসেনের সঙ্গে। এরপর থেকে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। একপর্যায়ে ২০২১ সালের ১২ ডিসেম্বরে বিবাহবন্ধনে আবন্ধ হন তারা।

বিয়ের ছয় মাস পর বিষয়টি জানাজানি হলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নানা আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

About

Popular Links