Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফেসবুকে প্রেম, প্রেমিককে বাসায় ডেকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ

ভুক্তভোগী তরুণের কাছ থেকে চাঁদাও দাবি করে অভিযুক্তরা

আপডেট : ২১ আগস্ট ২০২২, ০৭:১৩ পিএম

এক তরুণের বিবস্ত্র ভিডিও ধারণ এবং তার কাছ থেকে চাঁদা নেওয়ার অভিযোগে আটজনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

রবিবার (২১ আগস্ট) ভোরে ঢাকার আশুলিয়ার উত্তর গাজিরচটের বুড়িবাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জিয়াউল ইসলাম ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, উল্লিখিত অভিযোগে আশুলিয়ার উত্তর গাজিরচটের বুড়িবাজার এলাকার অঞ্জনা ভূঁইয়া (৪৫), গাজীপুরের সাব্বির মিয়া (১৯), গাইবান্ধার এক কিশোর (১৫), বাগেরহাটের নজরুল ইসলাম (২৮), মাদারীপুরের জান্নাত (২২) ও তার বোন জামিলা নুসরাত (১৮), জামালপুরের মতিউর রহমান (২৮) এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের হাছনারা (২৪)-কে গ্রেপ্তার করা হয়।

রবিবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। এ ঘটনায় আকাশ, মেঘলা আক্তার, তানিয়া আক্তার, বৃষ্টি, সূচি বেগম, সাথী বেগম, জাহাঙ্গীর, মাসুদ রানাসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজন পলাতক। তাদের ধরতেও অভিযান চলছে।

পুলিশ কর্মকর্তা জিয়াউল জানান, শাহ পরান নামে এক যুবকের সঙ্গে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে হাছনারার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। দেখা করার জন্য গত ২০ আগস্ট বিকেলে ওই কথিত প্রেমিকার বাসায় যান শাহ পরান।

ঘটনাস্থলে আগে থেকেই উপস্থিত থাকা অভিযুক্তরা শাহ পরানকে মারধর করে নগদ ১০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। পরে বিবস্ত্র অবস্থায় ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে আরও তিন লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে দারা। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে শাহ পরানকে আরও মারধর করা হয়। 

ভুক্তভোগী তরুণ কৌশলে র‌্যাব-৪ এর কন্ট্রোল রুমে বিষয়টি জানান। খবর পেয়ে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে। এ ঘটনায় শাহ পরান আশুলিয়া থানায় মামলা করেছেন।

র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে অভিযুক্তরা জানায়, তারা এভাবেই বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে বন্ধুত্ব এবং প্রেমের সম্পর্ক তৈরি করে কৌশলে বাসায় ডেকে আনে। পরে ফাঁদে ফেলে তাদের কাছ থেকে মোটা অঙ্কের টাকা আদায় করা হয়। তারা সংঘবদ্ধ হয়ে দীর্ঘদিন ধরে এ ধরনের অপরাধ করে আসছিল।

About

Popular Links