Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

৬ পিবিআই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বাবুল আক্তারের মামলার আবেদন

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই)  হেফাজতে থাকার সময় নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ স্ত্রী হত্যা মামলায় কারাগারে থাকা সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের

আপডেট : ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৩:৪০ পিএম

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মামলার আবেদন করেছেন স্ত্রী হত্যা মামলায় কারাগারে থাকা চট্টগ্রামের সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার।

বাবুল আক্তারের আইনজীবী অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান লাবু বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ ড. বেগম জেবুন্নেছার আদালতে মামলার আবেদন করেন।

আবেদনে আসামি করা হয়েছে- পিবিআই প্রধান বনজ কুমার মজুমদার, পিবিআই চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের এসপি নাজমুল হাসান, চট্টগ্রাম মেট্রো ইউনিটের এসপি নাঈমা সুলতানা, পিবিআইয়ের সাবেক পরিদর্শক সন্তোষ কুমার চাকমা, এ কে এম মহিউদ্দিন সেলিম ও সংস্থাটির চট্টগ্রাম জেলা ইউনিটের পরিদর্শক কাজী এনায়েত কবিরকে।

অভিযোগে বলা হয়, রিমান্ডে থাকা অবস্থায় পিবিআই কর্মকর্তারা বাবুলকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে হত্যার চেষ্টা করেন।

আবেদনে নির্যাতন ও হেফাজতে মৃত্যু (নিবারণ) আইন, ২০১৩ এর ১৫ (১) ধারা এবং সংশ্লিষ্ট আইনের ৫ (২) ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে।

আবেদনে বলা হয়, ২০২১ সালের ১০ মে থেকে ১৭ মে পর্যন্ত সময়ে পিবিআই চট্টগ্রাম মেট্রো ও জেলা অফিসে বাবুল আক্তারের ওপর নির্যাতন করা হয়। স্ত্রী হত্যার ঘটনায় মিথ্যা স্বীকারোক্তি দেওয়ার জন্য বাবুল আক্তারের সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করা হয়। এ কারণে মামলাটি দায়ের করা হয়।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরের জিইসি মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুল বাসে তুলে দিতে গিয়ে গুলি ও ছুরিকাঘাতে নিহত হন বাবুলের স্ত্রী মাহমুদা। এ ঘটনায় তিনি প্রথমে বাদী হয়ে মামলা করেন। পরে গত বছরের মে মাসে মাহমুদার বাবা বাদী হয়ে বাবুলসহ আটজনকে আসামি করে মামলা করেন।

এই মামলায় পিবিআই চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয়। আর বাবুলের করা মামলাটি সচল থাকে। গত বছরের মে মাসে বাবুলকে স্ত্রী খুনের মামলা আসামি করা হয়।

মামলায় পিবিআইয়ের তদন্ত প্রায় শেষ পর্যায়ে। বাবুলসহ সাতজনকে আসামি করে অভিযোগপত্র প্রস্তুত করেছে পিবিআই। এ মাসেই অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেওয়ার কথা রয়েছে পিবিআইয়ের। বাবুল আক্তার বর্তমানে কারাগারে আছেন।

About

Popular Links