Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ধ্বংস হচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দরের ৩৮২ কনটেইনার পণ্য

এসব কনটেইনারে ধ্বংসযোগ্য পণ্যের মধ্যে আছে- পেঁয়াজ, আদা, আপেল, ড্রাগন ফল, কমলা, আঙুর, হিমায়িত মাছ, মহিষের মাংস, মাছের খাদ্য, লবণ, রসুন, সানফ্লাওয়ার অয়েল ও কফি ইত্যাদি

আপডেট : ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৮:৩৬ পিএম

চট্টগ্রাম বন্দর ও বিভিন্ন অফডকে থাকা ৩৮২টি অব্যবহারযোগ্য ও পচনশীল কনটেইনার ধ্বংস করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি ঢাকা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের ডিসিপি মাহফুজ আলম।

রবিবার (১১ সেপ্টেম্বর) সকালে চট্টগ্রামের আউটার রিং রোড সংলগ্ন হালিশহরের আনন্দবাজার এলাকায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ডাম্পিং স্টেশনে এসব জিনিসপত্র ধ্বংসের অভিযান শুরু হয়।

মাহফুজ আলম ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “এসব কনটেইনারের সব জিনিসই অনুপযুক্ত এবং মেয়াদোত্তীর্ণ। জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের স্থায়ী বিধি মোতাবেক গত ২৯ আগস্ট গঠিত ধ্বংস কমিটির রায় অনুযায়ী কন্টেইনারগুলোর সামগ্রী ধ্বংস করা হচ্ছে। আমরা প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০টি পণ্যের কনটেইনার ধ্বংস করতে চাই। ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই ভাঙন চলবে।”

তিনি আরও বলেন, “কনটেইনারে থাকা মালামাল আগেই নষ্ট হয়ে গেছে। নিলামবিহীন ও মেয়াদোত্তীর্ণ জিনিসপত্র ধ্বংস করা একটি চলমান অভিযান। চলতি মাসের ৮ তারিখেও পণ্যের ৬৩টি কনটেইনার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ধ্বংসপ্রাপ্ত কন্টেইনারগুলোও চট্টগ্রাম বন্দর থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। এতে চট্টগ্রাম বন্দর এলাকায় কিছু জায়গা খালি হবে।”

চট্টগ্রাম বন্দর সূত্রে জানা গেছে, এসব কনটেইনারে ধ্বংসযোগ্য পণ্যের মধ্যে আছে- পেঁয়াজ, আদা, আপেল, ড্রাগন ফল, কমলা, আঙুর, হিমায়িত মাছ, মহিষের মাংস, মাছের খাদ্য, লবণ, রসুন, সানফ্লাওয়ার অয়েল ও কফি ইত্যাদি।

About

Popular Links