Saturday, June 15, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রংপুরে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সিন্ডিকেট ভাঙতে চিকিৎসকদের আল্টিমেটাম

রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সিন্ডিকেট এবং অসাধু চক্রের কাছে রোগীদের পাশাপাশি চিকিৎসকরাও জিম্মি

আপডেট : ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৬:৪৮ পিএম

রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলের আড়াই কোটি মানুষের একমাত্র বিশেষায়িত চিকিৎসা কেন্দ্র রংপুর রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল। কিন্তু এই হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের দৌরাত্মে। তাদের সিন্ডিকেট এবং অসাধু চক্রের কাছে রোগীদের পাশাপাশি  হাসপাতালটির চিকিৎসকরাও জিম্মি। 

অসাধু চক্র এবং চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের সিন্ডিকেটের অনিয়মের প্রতিবাদে সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে হাসপাতাল চত্বরে বিশেষজ্ঞ, সিনিয়র ও ইন্টার্ন চিকিৎসকরা মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছেন।

ওষুধ চুরি, হাসপাতালের জরুরি বিভাগে বকশিশ বাণিজ্যের নামে ফি আদায়, ট্রলিতে রোগীদের বহন করা এমনকি লাশ নামাতেও জোর করে টাকা আদায়সহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ জানানো হয়।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করেন, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আসা রোগীরা ভর্তি থেকে শুরু করে প্রতিটি ক্ষেত্রে দালাল সিন্ডিকেটের কাছে জিম্মি। তারা কোনো চিকিৎসা সেবা পান না। রোগীদের জন্য বরাদ্দ থাকা ওষুধ চুরি করে বিক্রি করে দেওয়া হয় বলে রোগীরা কোনো ওষুধও পান না।

অভিযোগ করে তারা আরও বলেন, ভর্তি হওয়ার পর ট্রলিতে করে ওয়ার্ডে নিয়ে যেতে এবং ট্রলি থেকে নামাতে ২০০ টাকা বকশিশ, বেড নিতে ৫০০ টাকা, চাদর বালিশ নিতে ১০০ টাকা বাধ্যতামূলকভাবে দিতে হয়। প্রতিবাদ করলে মারধরের শিকার হতে হয়। এমনকি রোগী মারা গেলে ট্রলিতে করে নিচে নামিয়ে আনা ও গাড়িতে তুলে দিতেও স্বজনদের কাছ থেকে ৫০০ টাকা রাখে চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা।

বক্তারা আরও বলেন, ওরা বকশিশের নামে জোর করে টাকা আদায় করছে। শুধু তাই না, জুনিয়র কনসালটেন্ট থেকে শুরু করে অধ্যাপক পদমর্যাদার চিকিৎসকরাও তাদের কাছে জিম্মি। দেশে আর কোনো সরকারি হাসপাতালে এমন নৈরাজ্য নেই। এ অবস্থা চলতে দেওয়া যায় না।

এই নৈরাজ্যের প্রতিবাদে চিকিৎসক সমাজকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানো হয় সমাবেশে। সেই সঙ্গে ২৪ ঘণ্টার সময়ও বেঁধে দেওয়া হয়। এর মধ্যে এই অসাধু চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির ঘোষণা দেন তারা।

সমাবেশে রংপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. বিমল চন্দ্র, সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. নুরন্নবী লাইজু , বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন (বিএমএ) রংপুর জেলা সভাপতি ডা. দেলোয়ার হোসেন, অধ্যাপক ডা. মামুনুর রহমান, ডা. সুজাউদ্দৌলা, ডা. সরোয়ার হোসেন চন্দন, ডা. জামাল উদ্দিন মিন্টু , ডা. আব্দুল ওহাব , ডা. মঞ্জুরুল কবীরসহ আরও অনেকে বক্তব্য রাখেন।

About

Popular Links